নয়াদিল্লি: চায়ে পে চর্চা এখন অতীত৷ বর্তমানে যাবতীয় চর্চার কেন্দ্রে বিজেপির ‘চৌকিদার’৷ আজ, বুধবার বিকেলে দেশের ২৫ লক্ষ ‘চৌকিদারে’র সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ হোলির রঙে রাঙাবেন তাদের৷

৩১শে মার্চ ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ আন্দোলনে যুক্ত কর্মী সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা বলবেন মোদী৷ তার আগে পড়েছে রঙের উৎসব৷ জনসংযোগের হাতিয়ার হিসাবে তাই এই উৎসবকে কাজে লাগাতে মরিয়া গেরুয়া শিবিরের সেনাপতি৷ আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই দেশের ২৫ লক্ষ চৌকিদারের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী৷

আরও পড়ুন: কেজরীওয়ালের নতুন প্রস্তাব ঘিরে আপ-কংগ্রেস জোট জল্পনা তুঙ্গে

২০১৪ সালে ক্ষমতায় এসেই দুর্নীতিমুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী৷ গত পাঁচ বছরে নোট বন্দি থেকে লোকপাল নিয়োগ, সবই তার উদাহরণ৷ ভোটের আগে এদিনের কনফারেন্স থেকে দুর্নীতি মুক্ত ভারত গড়ার নানা কার্যক্রমের কথা চিনি তুলে ধরবেন বলে মনে করা হচ্ছে৷ ২৫ লক্ষ ‘চৌকিদারে’র সঙ্গে কথা বলতে দেশের ৫০০টি জায়গা থেকে থাকছে ভিডিও কনফারেন্সের ব্যবস্থা৷

 

বিরোধীদের ‘চোর’ আক্রমণের পালটা হিসাবে বিজেপির কৌশলী চাল ‘ম্যায় ভি চৌকিদার’ কর্মসূচি৷ প্রথমে প্রধানমন্ত্রী নিজে, পরে তাঁর মন্ত্রীসবা ও দলের লোকেরা ট্যুইটারে নিজের নামের আগে চৌকিদার শব্দ যোগ করেছেন৷ বিজেপির দাবি এই কর্মসূচির দিন তিনেকের মাথায় প্রায় ২০ লক্ষ মানুষ ট্যুইটারে নামের আগে চৌকিদার শব্দটি লিখেছেন৷

তবে বসে নেই বিরোধীরাও৷ চৌকিদার কর্মসূচির পালটা হিসাবে কংগেরেসের স্লোগান, ‘হায় হায় রে মনোদী সরকার, কভি পান-পকোড়ে আর কভি চৌকিদার’৷ বিজয় মালিয়া থেকে নীরব মোদী, মেহুল চোকসিদের পুঁজি করে পদ্ম শিবিরের বিরোধীতায় সরব রাহুল এন্ড কোম্প্যানি৷ বিজেপিকে সমালোচনায় বিদ্ধ করছে মহাজোটের অন্যন্য দলও৷

আরও পড়ুন: কাকলী’র মন্তব্যে সব্যসাচীর দলবদল নিয়ে জোর জল্পনা

বিরোধীদের আন্দোলনকে ভোঁতা করতে অবশ্য আসরে বিজেপির সব প্রথম সারির নেতারাই৷ ম্যায় ভি চৌরিদার কর্মসূচি এখন আন্দোলনে পরিণত হয়েছে বলে দাবি গেরিুয়া দলটির৷ কংগ্রেসকে কটাক্ষ করে কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, যারা জামনিনে মুক্ত তাদেরই এতে গায়ে লাগছে৷

দেশ রক্ষা নিয়ে ভোটের আগে তরজা৷ জনতাকে এই কর্মসূচিতে সামিল করতে বিজেপির বাণী, দেশের প্রতিটি নাগরিক যারা দেশের জন্য কাজ করেন, ভালো ভাবেন, তারাই দেশের চৌকিদার৷ ভোটের আগে তাই ‘চৌকিদার’ কর্মসূচি ঘিরেই আবর্তিত হচ্ছে রাজনীতির শাসক-বিরোধী টিপ্পনী৷