নয়াদিল্লি: ভারতে বেশ কিছু ক্ষেত্রে রীতিমতো বৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে। যেমন প্রতিরক্ষা কৃষি, ক্ষুদ্র ছোট মাঝারি উদ্যোগ এবং নতুন শিল্প ক্ষেত্র। এইসব ক্ষেত্রে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানাতে একেবারে লাল কার্পেট বিছানো রয়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইক ২০২০ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমন কথাই জানিয়েছেন। এদিন প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, গোটা বিশ্বের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে ভারতবর্ষের একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে। ইতিমধ্যেই এদেশে অর্থনৈতিক পুনরুত্থানের সবুজ অংকুর দেখা গিয়েছে।

এদিনের অনুষ্ঠানে মোদী মনে করিয়ে দিয়েছেন, এদেশ এশিয়ার তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি। যা বিশ্বের অন্যতম মুক্ত অর্থনীতি এবং লগ্নি বন্ধু ও ব্যবসা সহায়ক পরিবেশ। ফলে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে এটা একটা বড় সুযোগ।

তিনি বলেছেন,”ভারত এখনও বিশ্বের সবথেকে বেশি মুক্ত অর্থনীতি দেশগুলির অন্যতম। ভারতে এসে তাদের উপস্থিতি বজায় রাখার জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলির জন্য একেবারে লাল কার্পেট বিছিয়ে রাখা হয়েছে। ” তিনি আরও বলেন, “আমরা দরজা খুলে দিচ্ছি বিনিয়োগকারীদের জন্য যাতে তারা সরাসরি লগ্নি করতে পারে।”

করোনা ভাইরাস অতি মহামারীর ‌ আকার ধারণ করায় এদেশের অর্থনীতি এক নয়া সংকটের মুখোমুখি তখন সরকার চাইছে বিদেশি লগ্নি টানতে। এই পথেই অর্থনীতিকে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে অগ্রাধিকার দিচ্ছে এই সরকার। তিনি একেবারে তালিকা করে উল্লেখ করেন সম্প্রতি কৃষি, প্রতিরক্ষা, মহাকাশ গবেষণা ইত্যাদিতে সংস্কার করা হয়েছে।

এই করোনা ভাইরাস অতি মহামারীর সময় সরকার ২১লক্ষ কোটি টাকার অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে যাতে সংকটে পড়া বিভিন্ন ক্ষেত্রের ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করে। এই অর্থনৈতিক ত্রাণ প্যাকেজে সুবিধে যারা পাচ্ছে তাদের অন্যতম ক্ষুদ্র ছোট-মাঝারি উদ্যোগ বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিন দিনের এই অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকজন মন্ত্রী এবং বিদেশি বিশিষ্ট অতিথিরা অংশ নিচ্ছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।