ফাইল ছবি

ইসলামাবাদ: ‘মোদী ফোবিয়ায়’ ভুগছে পাকিস্তান৷ বিভিন্ন বুথ ফেরত সমীক্ষায় নরেন্দ্র মোদীর দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় ফেরার খবরে প্রমাদ গুনছে প্রতিবেশী দেশটি৷ নমোকে নিয়ে পাকিস্তানের উত্তেজনা কিছু কম না তার প্রমাণ দিল গুগল ট্রেন্ডস৷

১৯ মে সাতদফার মহারণ শেষ হয়৷ আর ওই দিন সন্ধ্যার পর থেকেই বিভিন্ন বুথ ফেরত সমীক্ষার ফল সামনে আসতে শুরু করে৷ প্রতিটা সমীক্ষায় বিপুল জনাদেশ নিয়ে বিজেপির ক্ষমতায় ফেরার ইঙ্গিত দেওয়া হয়৷ আর তাতেই কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ে যায় পাকিস্তানের৷ সেদেশের খবরের চ্যানেলে এই নিয়ে বিতর্ক আলোচনা সভা পর্যন্ত বসে যায়৷ যদি মোদী ক্ষমতায় ফেরে তাহলে কী হবে? এই নিয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ৷

বিশেষজ্ঞদের মতে, মোদী ক্ষমতায় ফিরলে পাকিস্তানের জন্য চিন্তার কারণ থেকেই যায়৷ কারণ মোদীর আমলে প্রতিবেশী দেশে ঢুকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইক করে ভারত৷ ফলে নমো দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় এলে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নতির সম্ভাবনা ক্ষীণ বলা যেতে পারেই৷ আর সেই কারণে এত চিন্তা ও উদ্বেগ ইসলামাবাদের৷

এদিকে গুগল ট্রেন্ডস একটি চমকপ্রদ তথ্য সামনে এনেছে৷ ১৯ মে পাকিস্তানের মানুষ গুগলে নরেন্দ্র মোদী লিখে তাঁর বিষয়ে সবথেকে বেশি খোঁজখবর নেয়৷ জনসংখ্যায় ভারতের উত্তরপ্রদেশের থেকেও পিছিয়ে পাকিস্তান (সেদেশের জনসংখ্যা ১৯ কোটি)৷ অথচ ১৯মে মোদীর বিষয়ে খোঁজখবর নিতে গিয়ে ভারতকেও ছাপিয়ে যায় পাকিস্তান৷ গুগল ট্রেন্ডস বলছে, ওই দিন ভারতের থেকে পাকিস্তানের মানুষ মোদীকে নিয়ে গুগল সার্চ করেন৷ আর বালাকোটে এই সার্চের হার ছিল ১০০ শতাংশ৷ এই বালাকোটে ২৬ ফেব্রুয়ারি এয়ারস্ট্রাইক করে ভারতীয় বায়ুসেনা৷

ফাইল ছবি৷

অথচ ভোটের আগে মোদীকে চেয়ে বার্তা দিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইমরান সেই সময় জানান, লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে নরেন্দ্র মোদী জয়ী হয়ে ফের প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসলে তবে কাশ্মীর নিয়ে একটা আলোচনার পথে আসা সম্ভবপর হবে৷ তিনি আরও বলেছিলেন, বিজেপি না এসে যদি ক্ষমতায় কংগ্রেস আসে তাহলে কাশ্মীর সমস্যার কোনও সমাধান হবে না, বিষয়টি আরও স্পর্শকাতর হয়ে উঠতে পারে৷ তাঁর মতে, আফগানিস্তান, ভারত, ইরান, এই প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান পাকিস্তান এবং পাক নাগরিকদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়৷