নয়াদিল্লি: করোনা মোকাবিলায় আবারও রাজ্য সরকারগুলির সহায়তা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার বেশ কয়েকটি রজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে হওয়া সেই বৈঠকেই করোনা রুখতে কেন্দ্রের সঙ্গে একযোগে সমন্বয় রেখে কাজ করার আবেদন জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

গোটা দেশের ৮০ শতাংশ করোনার সংক্রমণ ছড়াচ্ছে ১০টি রাজ্যে। সেই তালিকায় রয়েছে বাংলাও। মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও পাঞ্জাব, মহারাষ্ট্র, তেলঙ্গনা, বিহার, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

প্রতিটি রাজ্যর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে করোনার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন মোদী। মুখ্যমন্ত্রীরাও করোনা রুখতে কী কী পদক্ষেপ করছেন, সেবিষয়ে একটি স্পষ্ট ধারণা দেন প্রধানমন্ত্রীকে।

বৈঠকে আবারও কেন্দ্রের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ চালিয়ে যেতে রাজ্যগুলিকে আবেদন জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন কেন্দ্র-রাজ্য মিলে কাজ করার সুফল মিলছে।

দেশে বর্তমানে করোনার সংক্রমণ মূলত ১০ রাজ্য থেকে ছড়াচ্ছে। সংক্রমণএ লাগাম পরানো নিয়ে রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কন্টেনমেন্ট জোন, কনট্যাক্ট ট্রেস করা ও নজরদারির ভিত্তিতেই সংক্রমণে লাগাম টানা যাবে বলে মনে করে কেন্দ্রীয় সরকার।

মুখ্যমন্ত্রীদেরও মূলত এই তিনটি দিকে নজরদারি বাড়াতে এদিনের বৈঠকে পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নোভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকবিলায় বেশি সংখ্যায় টেস্টকে সবসময় গুরুত্ব দেওয়া হয়। এদিন সেই বিষয়টি নিয়েও মুখ্য়মন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করেন প্রধানমন্ত্রী। একইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, উত্তরপ্রদেশে আগের চেয়ে বহুলাংশে করোনা টেস্ট বাড়ানোর তৎপরতার প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

গোটা দেশে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করেছে করোনা। গত কয়েকদিন ধরেই একদিনের নিরিখে সংক্রমণ ৬০ হাজারের গণ্ডি ছাড়িয়েছিল।

তবে মঙ্গলবার সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে গত ২৪ ঘণ্টার নিরিখে করোনার মোট সংক্রমণ বেড়েছে আরও ৫৩ হাজারের বেশি। সব মিলিয়ে মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২২ লক্ষ ৬৮ হাজার ৬৭৫। দেশজুড়ে করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৪৫ হাজার ২৫৭।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও