নয়াদিল্লি: একদিকে রাম মন্দিরের ভূমি পূজন। বহু প্রতীক্ষিত মন্দিরের সূচনা। অন্যদিকে, পালআল দিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। আক্রান্ত খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

এই পরিস্থিতিতে আমন্ত্রিতদের তালিকায় কাটছাঁট করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমন্ত্রণ পত্রে আরও তিনটি নাম রয়েছে।

বুধবারই রাম মন্দিরের ভূমিপূজন। তার ঠিক দু’দিন আগেই প্রকাশ্যে এল গেরিয়া রঙের সেই আমন্ত্রণ পত্র। সেখানে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নাম। মাত্র পাঁচজন থাকবেন মঞ্চে। প্রধানমন্ত্রী ছাড়া থাকবেন আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, উত্তরপ্রদেশের গভর্নর আনন্দিবেন পটেল ও মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এছাড়া মোহান্ত নৃত্য গোপালদাস মঞ্চে থাকতে পারবেন বলে জানা গিয়েছে।

অতিথিদের নাম ছাড়া রাম লাল্লা বা শ্রী রামের ছবি রয়েছে সেই কার্ডে। ইকবাল আনসারিকে প্রথম এই আমন্ত্রণ পাঠানো হয়েছে, তিনি অযোধ্যার একজন মামলাকারী। তিনি সংবাদসংস্থাকে রাম মন্দির প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘এটা ভগবান রামের ইচ্ছা।’

মোট ১৫০ জনের কাছে ওই আমন্ত্রণ পত্র গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। রাম মন্দিরের সূচনার জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদী একটো ৪০ কেজির রূপোর ইঁট স্থাপন করবেন বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সেখানে থাকতে পারবেন না কোনও সাধারণ মানুষ বা ভক্ত। ৫ জন বা তার বেশি মানুষের কোনও জমায়েত করা চলবে না ওই এলাকায়। জানানো হয়েছে করোনা ভাইরাসের লকডাউনের সব ধরণের প্রোটোকল বা নিয়ম কানুন মেনে চলতে হবে।

সম্প্রতি একজন পুরোহিত, যাঁর ওই ভূমি পুজোয় অংশ নেওয়ার কথা ছিল, তাঁর করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে। ফলে সতর্কতার আরোও কড়াকড়ি করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, যে পুলিশ কর্মীরা রাম মন্দিরের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন, তাঁদের মধ্যে ১৬জন কর্মী করোনা আক্রান্ত হন।

ভূমি পুজো উপলক্ষ্যে যাতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে না পড়ে, তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আলাদা করে নজরদারি করা হবে বলে জানানো হয়েছে। বিজেপির শীর্ষ স্থানীয় নেতারা ভক্তদের নিজেদের বাড়ি থেকেই পুজো দর্শন করার আবেদন করেছেন। অযোধ্যা জেলাশাসক অনুজ কুমার ঝা জানিয়েছেন অযোধ্যায় আপাতত করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও