নয়াদিল্লি: প্রত্যেকবারের মত এবার স্বাধীনতা দিবসেও লাল কেল্লা থেকে একগুচ্ছ ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ক্ষমতায় আসার পর থেকে একাধিক ক্ষেত্রে ‘ডিজিটাইজেশন’-এর দিকে নজর দিয়েছেন তিনি। এবার স্বাস্থ্যক্ষেত্রে ডিজিটাইজেশনের কথা বললেন মোদী।

ন্যাশনাল ডিজিটাল হেল্থ মিশনের সূচনার কথা এদিন লাল কেল্লা থেকে ঘোষণা করলেন তিনি। দেশের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে এর ফলে বিপ্লব ঘটতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি। সেই মিশনে প্রত্যেক ভারতবাসীখে একটি হেল্থ আইডি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মোদী জানিয়েছেন প্রত্যেককে দেওয়া হবে হেল্থ আইডি। আর সেই আইডি-তেই থাকবে ওই ব্যক্তির স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সব তথ্য। কোন চিকিৎসকের কাছে যাচ্ছেন, কী ওষুধ খাচ্ছে, স্বাস্থ্যে কী কী সমস্যা আছে, সবটাই থাকবে সেই আইডিতে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যখনই কেউ ডাক্তারের কাছে যাবে বা ওষুধ দোকানে যাবে, তখনই তার সমস্ত তথ্য ওই আইডি-তে নথিভুক্ত হয়ে যাবে। তৈরি থাকবে হেল্থ প্রোফাইল।’ থাকবে প্রেসক্রিপশন, ডায়গোনস্টিক রিপোর্ট সবকিছুই।

আয়ুস্মান ভারত প্রধানমন্ত্রী জন আরোগ্য যোজনার আওয়ায় হবে এই মিশন। এতে স্বাস্থ্যক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আসবে বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এর ফলে কোনও রোগী চিকিৎসকের কাছে গেলে ওই আইডি দেখালেই সব তথ্য পাওয়া যাবে। যাতে ডেটা লিক না হয়ে যায়, সেইজন্যই বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়া, করোনা ভ্যাক্সিন নিয়েও কথা বলেছেন মোদী। তিনি জানিয়েছেন, আত্মনির্ভর ভারতে দেশের মধ্যেই তৈরি হচ্ছে করোনা ভাইরাসের তিনটি ভ্যাকসিন। যা টেস্টিং-এর পর্যায়ে আছে। যত তাড়াতাড়ি বিজ্ঞানীরা সবুজ সংকেত দেবেন তত তাড়াতাড়ি ভ্যাকসিনের উৎপাদন শুরু করবে ভারত। প্রচুর পরিমানে ভ্যাক্সিন উৎপন্ন করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন তিনি। সেইসঙ্গে তিনি এও জানান যে, কত দ্রুত ভারতের মানুষের কাছে সেই ভ্যাক্সিন পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে, সেই পরিকল্পনা তৈরি হয়ে গিয়েছে ভারতের।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।