গ্রাফিক্স: মিতুল দাস

নিউজ ডেস্ক, বারাসত: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে কার্টুন এঁকে এর আগে গ্রেফতার হয়েছিলেন অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্র। আর সম্প্রতি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার শরীরে মমতার মুখ বসিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন এক মহিলা। একটি ব্যাঙ্গাত্মক ছবি শেয়ার করার জন্য গ্রেফতার করা হয়েছিল প্রিয়াঙ্কা শর্মাকে। সেই ইস্যুতেই এবার বাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে দিদি-কে আক্রমণ করলেন মোদী।

বুধবার টাকিতে সভা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। সেখানে এসে তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রাগ আর অহঙ্কারেই একটা মেয়েকে জেলে যেতে হল। তিনি বলেন, ‘দিদি একটা ছবির জন্য এত রাগ!’

মুখ্যমন্ত্রীর ছবি বিক্রি নিয়ে ওঠা অভিযোগের কথা উল্লেখ করে মোদী বলেন, ‘আপনি নিজে তো একজন শিল্পী। আপনার ছবি নারদা-সারদায় কোটি টাকায় বিক্রি হয়।’

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনি আমার একটি খারাপ ছবি আঁকুন। আর ২৩ মে’র পর আমি যখন আবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেব, তখন আমার বাসভবনে এসে সেই ছবি দিন। আমি আপনার বিরুদ্ধে কোনও এফআইআর করব না। সারাজীবন সেই ছবি আমার কাছে রেখে দেব।’

এই প্রসঙ্গে বছর কয়েক আগের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এক সাক্ষাৎকারে কথাও মনে করিয়ে দেন মোদী। বলেন, এক ছাত্রী দিদিকে প্রশ্ন করেছিল বলে তাঁকে গালি দিয়ে মঞ্চ ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন মমতা। তাঁর এই অহঙ্কার নতুন নয় বলেও মন্তব্য করেন মোদী।

এদিকে, বিজেপি যুব মোর্চার নেত্রী প্রিয়াঙ্কা শর্মাকে কেন দেরিতে মুক্তি দেওয়া হল? বুধবার এই প্রশ্ন তুলে রাজ্য সরকারকে কার্যত ভর্ৎসনা করে সুপ্রিম কোর্ট৷ মঙ্গলবারের নির্দেশের পর ১৮ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও প্রিয়াঙ্কাকে ছাড়া হয়নি৷ এই অভিযোগ নিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন প্রিয়াঙ্কার আইনজীবী৷ রাজ্য পুলিশের গাফিলতি এর জন্য দায়ি বলে সমালোচনা করেছে শীর্ষ আদালত৷ এদিন সুপ্রিম কোর্টে প্রিয়াঙ্কার আইনজীবী অভিযোগ করেন মুক্তি দেওয়ার আগে প্রিয়াঙ্কাকে দিয়ে জোর করে একটি ক্ষমাপ্রার্থনা করিয়ে চিঠি লেখানো হয়৷

তবে এই ইস্যুতে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ তারা হাতে পেয়েছিল মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটার পরে৷ ফলে জেলের অনুমোদন পেতে সময় লেগে যায় এদিন৷ আর তাই মঙ্গলবার প্রিয়াঙ্কাকে ছাড়া সম্ভব হয়নি৷ তবে এই সাফাই মানতে রাজী হয়নি সুপ্রিম কোর্ট৷ শীর্ষ আদালত জানিয়েছে এই যুক্তি মানা সম্ভব নয়৷ কারণ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ পাওয়ার পরেই মুক্তি প্রক্রিয়া শুরু করা উচিত ছিল৷