নয়াদিল্লি: শবরীমালায় মহিলাদের প্রবেশাধিকার দেওয়ার সত্বেও এখনও জারি রয়েছে বিতর্ক। প্রাচীন বিশ্বাস থেকে এখনও মহিলাদের প্রবেশের ক্ষেত্রে বাধা দেওয়া হচ্ছে। এরই মধ্যে এবার নিজামুদ্দিন দরগায় প্রবেশের অনুমতি চেয়ে আবেদন জানালেন আইনের এক ছাত্র।

দিল্লির হজরত নিজামুদ্দিন আউলিয়া দরগার ভিতরে মহিলাদের প্রবেশের অধিকার নেই। সেই অধিকার চেয়েই দায়ের হয়েছে জনস্বার্থ মামলা। আগামী সপ্তাহে হবে সেই মামলার শুনানি।

সম্প্রতি কিছু ছাত্রছাত্রী এই নিজামুদ্দিন দরগা দর্শনে যান। কিন্তু সেখানে গিয়ে দেখেন মহিলাদের ভিতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। তাঁরা বিষয়টি জানতে চেয়ে দরগা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে চান, দিল্লি পুলিশের সঙ্গেও কথা বলতে যান। কিন্তু কোনও তরফেই উত্তর পাওয়া যায়নি। তাই তাঁরা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন।

কমলেশ কুমার মিশ্র নামে ওই ছাত্র এই আবেদন জানিয়েছেন। কেন্দ্র, দিল্লি সরকার, পুলিশ এবং নিজামুদ্দিন দরগার ট্রাস্টের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে যাতে মহিলাদের ওই দরগার ভিতরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়। শবরীমালার রায়ের কথা উল্লেখ করে ওই ছাত্র জানিয়েছেন, দেশের রাজধানীতে এভাবে মহিলাদের বঞ্চিত করা ঠিক নয়।

আবেদনে বলা হয়েছে, ”নিজামুদ্দিন দরগা জনসাধারণের জন্য। এটি একটি পাবলিক প্লেস। আর যে কোনও পাবলিক প্লেসে কারও প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা সংবিধান বিরোধী।” আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে হাজি আলি দরগা বা আজমের শরিফ দরগায় কিন্তু মহিলাদের প্রবেশে কোনও নিষেধাজ্ঞা নেই।