স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শহরে বেসরকারিভাবে প্লাজমা থেরাপি শুরু করা হচ্ছে। মেডিকা হাসপাতালের তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে একথা জানানো হয়েছে। করোনাকে শীঘ্রই জয় করা সম্ভব বলে আশাবাদী চিকিৎসকরা।

জানা গিয়েছে, এই সপ্তাহের শুরুতেই প্লাজমা ব্যাংক তৈরি হবে মেডিকা হাসপাতালে। করোনাকে জয় করা মানুষদের প্লাজমা জমা করে নেবে এই ব্যাংকে এবং এখানে যে সব রোগী ভর্তি তাদের এই প্লাজমা দেওয়া হবে । প্রাথমিকভাবে মেডিকা হাসপাতালে যে সমস্ত রোগী ভর্তি রয়েছেন, তাঁদের উপরেই প্রথম প্রয়োগ করা হবে।

উল্লেখ্য, সারা দেশের মধ্যে প্রথম প্লাজমা ব্যাংক তৈরি হয় দিল্লির ইন্সটিটিউট অফ লিভার অ্যান্ড বিলিয়ারি সায়েন্সেসে (ILBS)।

প্লাজমা ব্যাঙ্ক কী? ব্লাড ব্যাঙ্কের নিয়মেই পরিচালিত হয় প্লাজমা ব্যাঙ্কও, তফাৎ শুধু এই যে প্লাজমা ব্যাঙ্ক গঠিত হয়েছে শুধুমাত্র সেইসব করোনা রোগীদের জন্য, যাঁদের চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির পরামর্শ দিয়েছেন ডাক্তাররা। আপাতত এই ব্যাঙ্ক গঠিত হয়েছে ILBS-এ, যা প্লাজমা সংগ্রহ কেন্দ্র হিসেবে কাজ করবে।

প্লাজমা দানের আগে কী কী পরীক্ষা হয়?

শরীরের বিভিন্ন অবস্থা নির্ধারণ করতে ল্যাবরেটরি পরীক্ষা হয় – সেরাম প্রোটিন এবং সিবিসি, হেপাটাইটিস বি ভাইরাস, হেপাটাইটিস সি ভাইরাস, এইচআইভি, ম্যালেরিয়া, এবং সিফিলিসের জন্য টিটিআই টেস্ট – যেমন হয় ব্লাড গ্রুপ নিশ্চিত করতে এবং অ্যান্টিবডির উপস্থিতি নির্ধারণ করতেও। সেরাম করোনা বৈশিষ্ট্যসূচক আইজিজি অ্যান্টিবডির ঘনত্ব ৮০ বা তার বেশি হওয়া বাঞ্ছনীয়।

একজনের প্লাজমা থেকে কতজন উপকৃত হতে পারেন?

প্রত্যেক দাতার প্লাজমা দিয়ে দুজনের চিকিৎসা হবে। দেহের ওজনের ভিত্তিতে আন্দাজ ৫০০ মিলিলিটার প্লাজমা একজন দাতার কাছ থেকে সংগ্রহ করে ব্যাংক।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ