নয়াদিল্লি: কোল ইন্ডিয়া-র উৎপাদন ইউনিটগুলিকে চারটি শাখায় ভাগ করে আলাদা আলাদা করে শেয়ারবাজারে নথিভুক্তি করার পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্র। এজন্য কোল ইন্ডিয়ার অধীনস্ত ওই চারটি সংস্থা আলাদা আলাদা আইপিও আনা হবে এবং যা থেকে কেন্দ্রীয় কোষাগারে বড় অংকের অর্থ ঢুকবে বলে আশা করছে সরকার। এহেন পরিস্থিতিতে কয়লা ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা বাড়বে ভারতে। বর্তমানে এদেশের ৮৩ শতাংশ কয়লা উৎপাদন হয় কোল ইন্ডিয়া থেকে ৷

কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের অধীনস্থ ডিপার্টমেন্ট অফ ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট (ডিআইপিএএম) অনেক দিন ধরেই কোল ইন্ডিয়ার অধীনস্থ সংস্থাগুলিকে ভাগ করে পৃথকভাবে শেয়ারবাজারে নথিভুক্তিকরণের কথা বলছিল। সংবাদসংস্থা ব্লুমবার্গ সূত্রে খবর, তাদের দেওয়া এই মর্মে প্রস্তাব কয়লা মন্ত্রক ও কোল ইন্ডিয়া খতিয়ে দেখছে ৷ সেক্ষেত্রে প্রস্তাব অনুসারে, কোল ইন্ডিয়া-র চারটি বৃহত্তম উৎপাদন ইউনিট এবং কয়লা অনুসন্ধান সংস্থাটিকে শেয়ারবাজারে নথিভুক্ত করার। তবে পুরো বিষয়টিই একেবারে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।

পড়ুন: বানতলায় পাঁচলক্ষ কর্মসংস্থান, ৮০হাজার কোটি টাকা লগ্নি

ভাবা হয়েছে কোল ইন্ডিয়াকে ভেঙে চার সংস্থা গঠন করার সেগুলি- মহানদী কোলফিল্ডস্‌, সাউথ ইস্টার্ন কোলফিল্ডস্‌, নর্দার্ন কোলফিল্ডস্‌ এবং সেন্ট্রাল কোলফিল্ডস্‌। এই চার সংস্থা থেকেই কোল ইন্ডিয়া-র মোট উৎপাদনের ৭৫ শতাংশ উৎপাদন হয় এবং এদের সম্মিলিত কর্মী সংখ্যা মোট কর্মীর ৫০ শতাংশেরও কম। অপর যে সংস্থাটিকে শেয়ারবাজারে নথিভুক্ত করানোর প্রস্তাব রয়েছে, তা হল সেন্ট্রাল মাইন প্ল্যানিং অ্যান্ড ডিজাইন ইনস্টিটিউট। যদিও এই পরিকল্পনার কথা কোল ইন্ডিয়া এবং কয়লা ও অর্থমন্ত্রকের কোনও কর্তা মন্তব্য করতে রাজি হননি।

যদিও দু’বছর আগেই নীতি আয়োগ কোল ইন্ডিয়া-কে ভাঙার প্রস্তাব দিয়েছিল। তখন যুক্তি ছিল, এর ফলে হোল্ডিং সংস্থাটির ইউনিটগুলি মধ্যে প্রতিযোগিতায় শুরু হবে৷ যদিও তৎকালীন কয়লামন্ত্রী পীযূষ গোয়েল তা খারিজ করে দেন৷