নুর-সুলতান: ভয়াবহ দুর্ঘটনা। ১০০ জন যাত্রীকে নিয়ে ভেঙে পড়ল বিমান। কাজাখস্থানে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। বিমানটি এয়ার পোর্ট থেকে ওড়ার পরই ভেঙে পড়ে বলে প্রাথমিক খবর।

এখনও পর্যন্ত সাতজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে কর্তৃপক্ষের তরফে এখনও মৃতের সংখ্যা ঘোষণা করা হয়নি।

কাজাখস্থানের আলমাতি এয়ারপোর্টে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। শুক্রবার সকালে বিমানবন্দর থেকে বেক এয়ারের একটি বিমান ওড়ে। কিছুক্ষণের মধ্যেই ভেঙে পড়ে সেটি।

কাজাখস্থানের সবথেকে বড় শহর আলমাতি থেকে দেশটির রাজধানী নুর-সুলতানের দিকে রওনা হয়েছিল বিমানটি। তাতেই এই দুর্ঘটনা ঘটে। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছয় উদ্ধারকারী দল। যাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে, তাদের দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

বিমানটি কিছুর সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যায় বলে মনে করা হচ্ছে। একটি দোতলা বাড়ির উপর ভেঙে পড়ে বিমানটি।

ঘটনাস্থল থেকে যেসব ছবি ও ভিডিও আসতে শুরু করেছে, তাতে এক মহিলাকে অ্যাম্বুলেন্সের জন্য চীৎকার করতে শোনা যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে বিমানের ককপিট বাড়িটির একপাশে ঝুলে আছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট কাশিম জোমারত এই ঘটনায় আহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন। কেন এই দুর্ঘটনা ঘটল, তা খতিয়ে দেখতে বিশেষ কমিটি তৈরি করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

তবে কাজাখস্থানে বিমান দুর্ঘটনা প্রথম নয়। এর আগে ২০১৩-র ২৯ জানুয়ারি এই আলমাতি বিমাবন্দরের কাছেই ভেঙে পড়ে বিমান, ২০ যাত্রীর মৃত্যু হয়েছিল। এছাড়া ২০১৬-র ২৬ ডিসেম্বর একটি মিলিটারি বিমান ভেঙে ২৭ জনের মৃত্যু হয়।