স্টাফ রিপোর্টার, হলদিয়া: ৩১৫ জন শারীরিক প্রতিবন্ধী বা দিব্যাঙ্গের হাতে তাঁদের সহায়ক সামগ্রী তুলে দিলেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ বৃহস্পতিবার সকালে এক শিল্প সংস্থা তাদের সিএসআর বা সামাজিক দায়বদ্ধতা প্রকল্পে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে৷ হলদিয়া রিফাইনারির উদ্যেদো এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়৷

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হলদিয়া রিফাইনারির এগজিকিউটিভ ডিরেক্টর সি কে তেওয়ারি, হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের কার্যনির্বাহী আধিকারিক বিভু গোয়েল সহ অন্যান্যরা। এদিন অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে ৬৬ জনকে ট্রাই- সাইকেল, ১৫ জনকে মোটোরাইসড ট্রাই সাইকেল, ৫৪ জনকে হুইল চেয়ার, ৭০ জনকে ক্রাচ, ১২ জনকে ওয়াকিং স্টিক, ৮ জনকে হিয়ারিং এড এবং ২৪ জনকে স্মার্ট কেন প্রদান করা হয়।

হলদিয়া রিফাইনারির এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর বলেন গত ১৭ ই আগষ্ট ২০১৮ সালে হলদিয়া পৌরসভার নজরুল মঞ্চে এলিমকো( ALIMCO)-র সহায়তায় একটি শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই শিবির থেকে হলদিয়া এলাকার ৩১৫ জনকে চিহ্নিত করে তাদের হাতে প্রয়োজনীয় সামগ্রী তুলে দেওয়া সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ দিব্যাঙ্গ ভাই বোনদের হাতে সহায়ক সরঞ্জাম তুলে দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে।

মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, সাংসদ থাকাকালীন সময় থেকে বিভিন্ন শিল্প সংস্থার নানা অনুষ্ঠানে যোগদান করে আসছি। আগে সেই ভাবে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানো হত না। পরে ধীরে ধীরে বিভিন্ন শিল্প সংস্থা তাদের সি এস আর এর টাকায় মানুষের পাশে থেকে উন্নয়ন করে চলে৷ দিব্যাঙ্গদের পাশে থাকায় আমি ভীষন খুশি হয়েছি। আমি দিব্যাঙ্গদের পাশে আছি। তাদের ভাতা থেকে নানা সুযোগ সুবিধার দিকে আমার নজর রয়েছে।

তিনি আরও বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে কথা বলে দিব্যাঙ্গদের মাসিক ভাতা ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা করা হয়েছে৷ সেই সাথে রাজ্য সরকার দিব্যাঙ্গদের জন্য নতুন একটি প্রকল্প চালু করেছে যার মাধ্যমে কয়েক লক্ষ দিব্যাঙ্গ সহযোগিতা পাচ্ছে৷ আজ দিব্যাঙ্গরা সমাজের কাছে বোঝা নয়। তারাও আজ স্বনির্ভর।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ