নয়াদিল্লিঃ  শুক্রবারই বাজেটে জ্বালানির উপর অতিরিক্ত আন্তঃশুল্ক এবং সেস বসিয়েছে দ্বিতীয় নরেন্দ্র মোদী সরকার। যার ফলে এক ধাক্কায় পেট্রোল-ডিজেলের দাম ছাড়াল আড়াই টাকা। বাজেটে এই ঘোষণার পর আজ শনিবার এই দাম বৃদ্ধি হয়েছে। যার ফলে এদিন সকালে পেট্রোল পাম্পে গিয়ে তেল ভরতে গিয়ে কার্যত নাভিশ্বাস ওঠার মতো অবস্থা সাধারণ মানুষের। এক ধাক্কায় ২টাকারও বেশি দাম বৃদ্ধি হওয়াতে মাথায় হাত আম-আদমির। শনিবার মধ্যরাত থেকে নয়া বর্ধিত দাম কার্যকর হয়েছে।

মেট্রো শহরগুলিতে এক ধাক্কায় লিটার পিছু পেট্রলের দাম বৃদ্ধি হয়েছে ২ টাকা ৪০ পয়সা। বেড়েছে ডিজেলের দামও। লিটার প্রতি ডিজেলের দাম বেড়েছে ২ টাকা ৩৬ পয়সা। আজ কলকাতায় পেট্রলের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৫ টাকা ১৫ পয়সা। ডিজেলের দাম ৫৮.৫৯ টাকা। অন্যদিকে রাজধানীতে পেট্রলের দাম হয়েছে ৭২ টাকা ৯৬ পয়সা। মুম্বইয়ে যথাক্রমে ৭৮.৫৯ টাকা ও ৬৯.৯০ টাকা। চেন্নাইয়ে পেট্রল ও ডিজেলের দাম অন্যন্য মেট্রো শহরগুলির থেকে একটু বেশিই বেড়েছে। শনিবার লিটার পিছু ২.৫৭ টাকা বেড়ে ৭৫.১৫ টাকা।

লিটার পিছু ডিজেলের দাম বেড়েছে ২.৫২ টাকা। পাশাপাশি ডিজেলের দাম দাঁড়িয়েছে ৭০.৪৮ টাকা। কেন্দ্রীয় সরকার সেস এবং অতিরিক্ত আন্তঃশুল্ক বসানোর ফলে এক টাকা করে দাম বেড়েছে। আর এর উপর যুক্ত হয়েছে সংশ্লিষ্ট সেই রাজ্যের ভ্যাট। ফলে এক ধাক্কায় আড়াই টাকারও বেশি ছাড়িয়ে গিয়েছে পেট্রোল এবং ডিজেলের দাম।

মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিরোধীরা। তৃণমূলের তরফে এই সিদ্ধান্তকে স্বপ্ন দেখানোর বাজেট বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ট্যুইটার হ্যান্ডেলে কী কারণে বিরোধিতা তার কারণগুলি তুলে ধরা হয়েছে তৃণমূলের তরফে৷ মূলত পাঁচটি কারণের উপর ভিত্তি করে কেন্দ্রীয় বাজেটের বিরোধীতা করা হয়েছে৷ প্রথমেই বলা হয়েছে, দ্বিতীয় মোদী সরকারের প্রথম বাজেট স্বপ্ন দেখানোর বাজেট৷ সরকার এখনও স্বপ্ন দেখিয়ে চলেছে৷ কিন্তু তা কার্যকর হচ্ছে না৷ ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষের জন্য এটি একটি দুঃস্বপ্ন৷