স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : লকডাউনে আর কিছু না ভালো হোক কলকাতার বাজারে এক জায়গায় থমকে গিয়েছে জ্বালানীর দাম। ফলে যে গাড়িগুলি সবজি নিয়ে আসছে তাদের জন্য কিছুটা হলেও সুবিধাজনক হচ্ছে এই পেট্রোলের দাম। এমনটাই জানা যাচ্ছে বাজার সূত্রে। আজ রবিবার ২৯ মার্চ,২০২০ পেট্রোলের দাম ৭২.২৯ টাকা, ডিজেলের দাম ৬৪.৬২ টাকাই রয়েছে।

কিন্তু কেন কলকাতায় জ্বালানীর দাম একই জায়গায় থমকে? বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, অনেক দিন আগেই শুল্ক চড়িয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তার প্রভাব প্রথম দিকে তেমন ভাবে পড়েনি কলকাতার পেট্রোলের দামের উপর। এদিকে অপরিশোধিত তেলের দাম ক্রমে কমছিলই। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। শুল্ক বৃদ্ধির প্রভাব হয়তো সামান্য হলেও বোঝা যাচ্ছে। যার জেরে একটানা এতদিন ধরে পেট্রোলের দাম একই জায়গায় আটকে রয়েছে।

তবে শতাংশের বিচারে বিগত ২৭ দিনে ব্যাপক হারে দাম কমেছে পেট্রোলের। সঙ্গে কমেছে ডিজেলের দামও। দুই ক্ষেত্রেই দুটাকার বেশি দাম কমে। শতাংশের বিচারে তা অনেকটাই কমেছে। ভারত সরকার শুল্ক চরিয়ে কোনও মতে আটকে রেখেছে জ্বালানির দাম। না, হলে এই মাসেই সত্তরের ঘরে চলে আসার কথা পেট্রোল ডিজেলের দাম। গত ২৬ দিনের তথ্য ঘাঁটলে দেখা যাচ্ছে পেট্রোলের দাম পরিবর্তন হয়েছে ২.৮৯ শতাংশ , ডিজেলের দামে পরিবর্তন হয়েছে আরও বেশি ৩.১১ শতাংশ।

কেন্দ্র ইতিমধ্যেই পেট্রোল ও ডিজেলের ওপর বসানো অতিরিক্ত শুল্কের মাত্রা বাড়াতে ব্যবস্থা নিয়েছে । পেট্রোলের ক্ষেত্রে তা করা হয়েছে লিটার পিছু ১৮ টাকা এবং ডিজেলের ক্ষেত্রে লিটার পিছু ১২ টাকা। আগের থেকে যা লিটার পিছু ৮ টাকা বেশি। যা পেট্রোলের ক্ষেত্রে ১০ টাকা এবং ডিজেলের ক্ষেত্রে লিটার পিছু ৪ টাকা বেশি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.