নয়াদিল্লিঃ  দ্বিতীয় মোদী সরকারের আমলে আরও দামি পেট্রোল-ডিজেল। জ্বালানির উপর অতিরিক্ত অন্তঃশুল্ক এবং সেস প্রতি ক্ষেত্রেই এক টাকা করে বাড়ল। যার ফলে আরও দামি হতে চলেছে জ্বালানি। আজ শুক্রবার সংসদে বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। বাজেটের পেশের সময় অর্থমন্ত্রী জানান, পেট্রোল ও ডিজেলে বসবে সেস। প্রতি লিটার পেট্রোল ও ডিজেলে সড়ক ও পরিকাঠামো সেস এবং বিশেষ অতিরিক্ত কর হিসাবে এক টাকা ধার্য করা হচ্ছে। ফলে লিটার প্রতি ২ টাকা করে দাম বাড়ল জ্বালানির।

তবে সরকারের এহেন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ। তাঁদের দাবি, প্রতিদিনই দাম বাড়ছে পেট্রোল-ডিজেলের। পাম্পে গিয়ে রীতিমত সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। এরপরেও যদি আর সেস বাড়ানো হয় তাহলে আকাশ ছোঁবে জ্বালানির দাম, এমনটাই দাবি সাধারণ মানুষের। শুধু তাই নয়, এভাবে জ্বালানির দাম এক ধাক্কায় এতটা বৃদ্ধি পাওয়াতে অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দামও বৃদ্ধি পাবে বলে আশঙ্কা অর্থনীতির কারবারিরা। ফলে অবিলম্বে মোদী সরকারের কাছে এই সেস প্রত্যাহার করে নেওয়ার দাবি সাধারণ মানুষের।

শুধু পেট্রোল এবং ডিজেলের উপরেই অতিরিক্ত অন্তঃশুল্ক এবং সেস বসানো হয়, সোনা ও অন্যান্য ধাতুর লেনদেনে শুল্ক চাপানো হয়েছে। ফলে আগামীদিনে সোনা সহ অন্যান্য ধাতুর দামও বৃদ্ধি পাবে। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বাজেট পেশ করার সময় জানিয়েছেন, কাস্টম ডিউটি বাড়ানো হচ্ছে সোনা সহ অন্যান্য ধাতুর। আর তা ১০ শতাংশ থেকে এক ধাক্কায় ১২.৫ শতাংশ করা হচ্ছে। ফলে দাম যে আগামী কয়েকমাসের মধ্যে আকাশ ছুঁতে চলেছে তা কার্যত মেনে নিচ্ছেন সমস্ত অর্থনীতির কারবারিরা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ