মুম্বই: টিম ইন্ডিয়ার দল নির্বাচন নিয়ে সম্প্রতি বেশ কেয়কটি বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷ যার সাম্প্রতিকতম সংযোজন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট দল থেকে করুণ নায়ারের বাদ পড়া৷

আরও পড়ুন: হিটম্যান ইস্যুতে কাঠগড়ায় নির্বাচকরা

এমনিতে রোহিত শর্মার টেস্ট দলে জায়গা না পাওয়া নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই নির্বাচকদের তোপ দেগে চলেছেন বেশ কিছু প্রাক্তন ও বর্তমান তারকা৷ এবার ইংল্যান্ড সফরে দলের সঙ্গে ঘুরে বেড়ানো নায়ারকে প্রথম একাদশে সুযোগ না দিয়েই ছেঁটে ফেলায় সরাসরি ক্ষোভ উগড়ে দিতে দেখা গিয়েছে সমালোচকদের৷

নায়ার নিজেও হতাশা প্রকাশ করেছেন বাদ পড়া নিয়ে৷ দ্বিতীয় ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসাবে ব্যক্তিগত ত্রিশতরানের ইনিংসের পর সেভাবে সুযোগ না পাওয়ায় একপ্রকার মুষড়ে পড়েছেন তিনি৷ এ প্রসঙ্গে তাঁর সঙ্গে পরিস্কারভাবে নির্বাচকরা কোনও কথা বলেননি বলেও জানিয়েছেন করুণ৷ পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে, সুযোগের অপেক্ষায় বসে থাকা ছাড়া কোনও উপায়ও নেই তার৷

আরও পড়ুন: তিনশো’র নায়কের করুণ কাহিনিতে হতাশ প্রাক্তন নির্বাচক

নায়ার প্রসঙ্গে বিকর্ক উত্থাপিত হতেই জাতীয় নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদ আসরে নামেন৷ তিনি সাফাই দেন যে, তাদের তরফে দু’দফায় নায়ারের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে৷ একবার দেবাং গান্ধি ও একবার তিনি নিজে যোগাযোগ করেন করুণের সঙ্গে৷ তিনি এও জানান যে, তাঁরা নায়ারকে জানিয়েছেন কেন তাঁকে বাদ দেওয়া হল এবং দলে ফেরার উপায়ও বাতলে দিয়েছেন তারা৷

প্রসাদ বলেন, ‘ইংল্যান্ড সফর চলাকালীন দেবাং গান্ধি নায়ারের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা করেন৷ ওকে তখনই সুযোগের অপেক্ষায় থাকার কথা জানানো হয়েছিল৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্টের দল গড়ার আগে আমি এই নিয়ে কথা বলি ওর সঙ্গে৷ ওকে জানাই যে, দেশের মাটিতে টেস্ট দলে অতিরিক্ত ক্রিকেটার রাখা সম্ভব নয় বলেই ওকে স্কোয়াডের বাইরে রাখা ছাড়া উপায় নেই৷ তাই জাতীয় দলে ফিরে আসার আগে রঞ্জি ও ‘এ’ দলের হয়ে ম্যাচগুলোয় ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে বলেছি৷’

আরও পড়ুন: ‘পাকিস্তানকে এক পয়সাও দেওয়া উচিত নয়’

গাভাসকরের মতো প্রাক্তন তারকা অবশ্য ইংল্যান্ড সফরে নায়ারকে টপকে নবাগত হনুমা বিহারীর প্রথম একাদশে ঢুকে পড়ার ব্যপক সমালোচনা করেছিলেন৷ সানি স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, নায়ারের সঙ্গে অত্যন্ত অন্যায় করল টিম ম্যানেজমেন্ট৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।