স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: রাস্তা নোংরা করার পাশাপাশি গাড়ি রেখে দখল করে ব্যবসা চালানোর প্রতিবাদ করায় আক্রান্ত প্রতিবাদী। ব্যাপক মারধর করা হয় দেবব্রত বঙ্গবাস (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে। মারধর করার অভিযোগ উঠেছে ব্যবসায়ী সংস্থার মালিক এবং তার কর্মীদের বিরুদ্ধে। দেবব্রতকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন তার ভাই ও বাড়ির কাজের লোক। আক্রমণকারীরা তাদেরকেও মারধর করে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। ঘটনাটি বারাসতের শিব মন্দির এলাকায়৷

শুধু মারধরের ঘটনা নয় এলাকার মহিলাদের কটূক্তিও করা হয়েছে বলে অভিযোগ। মারধরের ঘটনায় তিন জন আহত হয়েছেন। আহতদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে বারাসত হাসপাতালে। ঘটনাস্থলে বারাসত থানার পুলিশ এসে পাঁচ জনকে আটক করে নিয়ে যায়৷ পরে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

বারাসতের শিবমন্দির এলাকা। রাস্তার দুই পাশে বহুতল ফ্ল্যাট। এরই একটা ফ্ল্যাটের নীচের একটা ঘর ভাড়া নিয়ে ফাস্ট ফুডের গোডাউন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত চার মাস ধরে ব্যবসা চালাচ্ছেন এক ব্যক্তি। স্থানীয়দের অভিযোগ প্রতিদিন ওই ব্যবসায়ী রাস্তা দখল করে গাড়ি রাখেন। রাস্তার দুই দিকে এলোমেলোভাবে গাড়ি রাখার ফলে স্থানীয়দের হাটতে সমস্যা হয়। এছাড়াও রাস্তায় যত্রতত্র ফাস্টফুডের প্যাকেট রেখে রাস্তা নোংরা করে রাখেন ওই ব্যবসায়ী এবং তার কর্মীরা। এর আগেও এর বিরোধিতা করেছিলেন স্থানীয়রা।

একইভাবে স্থানীয় ব্যবসায়ী দেবব্রত বঙ্গবাস প্রতিবাদ করেন। তিনি বলেন, রাস্তা দখল করে গাড়ি রাখার ফলে এলাকার সকলেরই সমস্যা হচ্ছিল। এদিন ফাস্টফুডের গোডাউনের মালিককে গাড়ি সরিয়ে নেওয়ার কথা বলতেই সে ও তার কয়েকজন কর্মী তাঁকে মারধর শুরু করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা দিপাঞ্জন মিত্র বলেন, এই রাস্তা এলাকার মানুষের হাঁটা চলার জন্য। কিন্তু ফাস্টফুডের ওই ব্যবসায়ী রাস্তা দখল করে গাড়ি রাখেন। শুধু তাই নয় ফাস্টফুডের প্যাকেট যত্রতত্র ফেলে রাস্তা নোংরা করে রাখে। এরই প্রতিবাদ করেছিলেন দেবব্রত বাবু। এই কারণেই তাকে ব্যাপক মারধর করে ওই ব্যাবসায়ী৷

তিনি আরও জানান, দেবব্রত বাবুকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন তার ভাই শমু বঙ্গবাস ও তাদের বাড়ির কাজের লোক। তাদেরকেও মারধর করা হয়। এই ঘটনায় তিন জন আহত হয়েছেন। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়৷ স্থানীয় মহিলা সহ অন্যান্য লোকজন জড়ো হন। মহিলাদের অভিযোগ এর বিরোধিতা করায় অভিযুক্তরা তাদের কটূক্তি করে। স্থানীয়রাই আহতদের বারাসত হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে আহতদের এক জন মাথায় গুরুতর চোট পেয়েছেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে বারাসত থানার পুলিশ। আক্রমণকারীদের পাঁচ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়৷ বারাসত থানার আইসি দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বলেন, লিখিত অভিযোগের ভিত্ততে একটা কেস করা হয়েছে। পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।