স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : বেশি নয়, আগামী ৪৮ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই রাজ্যে প্রবেশ করে যাবে বর্ষা। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। তার আগে আজ বুধবার থেকে ভাসবে উত্তরবঙ্গ। দক্ষিণবঙ্গে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বৃষ্টির আশা কম।

শুক্রবার অর্থাৎ যেদিন বর্ষা প্রবেশের সম্ভাবনা সবথেকে বেশি সেদিনী দক্ষিণবঙ্গে ভালো পরিমান বৃষ্টি হতে পারে। তার আগে স্থানীয়ভাবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হতে পারে। তবে এতে অস্বস্তি কম্বে না দক্ষিনবঙ্গের।

হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, আজ বুধবার উত্তরবঙ্গে দুই জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহারে আগামী ২৪ ঘণ্টাতেও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়িতেও ভাল পরিমান বৃষ্টির পূর্বাভাস দিচ্ছে হাওয়া অফিস।

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি হলেও অস্বস্তি বাড়বে দক্ষিণবঙ্গে। বিগত কয়েকদিনের ম্যই আজ ও আগামি ২৪ ঘণ্টায় বাতাসে জলীয়বাস্প বেশি থাকায় হাঁসফাঁস পরিস্থিতি বজায় থাকবে। কয়েকটি জেলায় বজ্রবিদ্যুতসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। স্বস্তির খবর মিলতে পারে শুক্রবার। বৃষ্টির পরিমান বাড়তে পারে দক্ষিণবঙ্গে।

এদিকে যেহেতু বর্ষা সামনেই। কলকাতার তাপমাত্রাও যেমন বাড়ছে, প্যাচপ্যাচে গরমও হচ্ছে। বৃষ্টির দেখা নেই। সঙ্গে আর্দ্রতাও ক্রমে বেড়েই চলেছে। আজ বুধবার আবার কলকাতায় বৃষ্টির পূর্বাভাসও নেই। কিন্তু আকাশ সকাল থেকে মেঘাছন্ন।

বুধবার মঙ্গলবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। আর্দ্রতার পরিমান সর্বোচ্চ ৯৩ শতাংশ , সর্বনিম্ন ৫৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টি হয়নি। আজ তাপমাত্রা থাকবে সর্বোচ্চ ৩৬ থেকে সর্বনিম্ন ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। তবে আর্দ্রতার সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯০ শতাংশের উপড়ে এটাই বলে দিচ্ছে বর্ষা খুবই কাছে এসে গিয়েছে। কারণ আবহাওয়াবিদদের ব্যখ্যা অনুযায়ী বর্ষায় আর্দ্রতার পরিমান ৯০ শতাংশ হয়ে যায়।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।