লন্ডন: পাঁচ দিনের ব্যবধানে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির কাছে দ্বিতীয় হার৷ স্বাভাবিকভাবেই আর্সেনালে ক্রমশ কোনঠাসা হচ্ছেন আর্সেন ওয়েঙ্গার৷ গানার্স কোচ হিসাবে ২২ বছরের সফল কেরিয়ার যে শেষ অধ্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করার লোক ক্রমশ কমছে৷

গত রবিবার ওয়ম্বলিতে লিগ কাপের ফাইনালে ম্যান সিটির কাছে ৩-০ গোলে হারতে হয়েছিল আর্সেনালকে৷ সপ্তাহ ঘোরার আগেই সেই চেনা ছবি ফিরল গানার্সদের ঘরের মাঠে৷ এবার প্রিমিয়র লিগের ম্যাচে গুয়ার্দিওয়াল ছেলেদের হাতে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত হল ওয়েঙ্গারের দল৷ পর পর দু’টি ম্যাচে ম্যান সিটির কাছে ৬টি গোল হজম করা আর্সেনালের আত্মবিশ্বাস কার্যত তলানিতে এসে ঠেকেছে৷ ম্যাচের শেষে সেকথা স্বীকার করে নেন বারুদের স্তুপে দাঁড়িয়ে থাকা ওয়েঙ্গার৷

কাকতলীয়ভাবে আর্সেনালের বিরুদ্ধে দু’টি ম্যাচই সিটি কোচ গুয়ার্দিওলার কাছে ছিল ব্যক্তিগত মাইলফলক সূচক৷ ওয়েম্বলির জয়ে ম্যানেজার হিসেবে সিটিকে প্রথম ট্রফি উপহার দেন গুয়ার্দিওলা৷ এমিরেটস স্টেডিয়ামের এই ম্যাচটা ছিল ম্যাঞ্চেস্টার সিটির কোচ হিসাবে গুয়ার্দিওলার শততম ম্যাচ৷ সেদিক থেকে বড় জয়ে কোচের দু’টি মাইলস্টোন ম্যাচকেই স্মরণীয় করে রাখেন আগুয়েরোরা৷

ম্যাচের ১৫ মিনিটে লিরয় শেনের পাস থেকে সিটির প্রথম গোল করেন বার্নাদো সিলভা৷ শেষ ম্যাচে চোট পাওয়া ফার্নান্ডিনহোর পরিবর্তে সিনভাকে প্রথম একাদশে সুযোগ করে দিয়েছিলেন গুয়ার্দিওলা৷ সুযোগ যথাযথ কাজে লাগান তিনি৷ ২৮ মিনিটে আগুয়েরোর পাস থেকে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুন করেন ডেভিড সিলভা৷ ৩৩ মিনিটে লিরয় শেনের দুরন্ত গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে ৩-০ করে ম্যান সিটি৷

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফেরার মরিয়া প্রচেষ্টা করেও সফল হয়নি আর্সেনাল৷ এই ম্যাচে জয়ের ফলে প্রিমিয়র লিগ খেতাবের আরও কাছে চলে আসে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি৷ ২৮ ম্যাচে তাদের সংগ্রহে রয়েছে ৭৫ পয়েন্ট৷ শেষ দশটি ম্যাচের অন্তত পাঁচটিতে জিতলেই শেষ সাত বছরে তৃতীয় প্রিমিয়র লিগ খেতাব ঘরে তুলবে সিটি৷ লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের দখলে রয়েছে ২৮ ম্যাচে ৫৯ পয়েন্ট৷ সুতরাং ইউনাইটেডের থেকে ১৬ পয়েন্টে এগিয়ে থাকা সিটি কার্যত বাকিদের ধরাছোঁয়ার বাইরে৷

এদিকে আর্সেনাল ২৮ ম্যাচে ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে৷ প্রথম চারে থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে না পারলে মরশুমের শেষেই বিদায় কার্যত নিশ্চিত ওয়ঙ্গারের৷