তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ‘নির্বাচনে টাকার প্রয়োজন আছে। আমাদের কোন কর্পোরেট হাউস টাকা দেয় না। তাই সাধারণ মানুষের কাছে আমরা অর্থ সংগ্রহ করি।’ এমনটাই জানালেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান ও সিপিএম পলিট ব্যুরোর সদস্য বিমান বসু।

শনিবার বিকেলে বাঁকুড়া শহরে নির্বাচনী তহবিলে অর্থ সংগ্রহ করতে আসেন তিনি৷ সেখানে তিনি বলেন, জনগণই আমাদের অর্থদাতা। তাঁদের দেওয়া অর্থেই আমাদের নির্বাচনী কাজ পরিচালনা হবে। বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রে কংগ্রেসের প্রার্থী না দেওয়াতে কি তৃণমূল কোন সুবিধা পেতে পারে? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে বিমান বসু বলেন, ২০১৪ সালে লোকসভা ভোটে কংগ্রেস পেয়েছিল ১.৮৭ শতাংশ ভোট। সিপিএম প্রার্থী পেয়েছিলেন ৩২ শতাংশ ভোট। আর যিনি জিতেছিলেন তিনি ৩৯ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন। তাই কে প্রার্থী দিল বা না দিল তাতে কিছু যায় আসে না বলেই তিনি মনে করেন। বাঁকুড়ার জঙ্গল মহল প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে বিমান বসু বলেন, ‘মানুষ নতুন করে ভাবছে’।

বাঁকুড়া শহরের মাচানতলা, সুভাষ রোড, চকবাজার এলাকায় বিমান বসুর উপস্থিতিতে সিপিএমের নির্বাচনী অর্থ সংগ্রহ কর্মসূচী ঘিরে সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গিয়েছে। পথ চলতি মানুষ, ছোট বড় ব্যবসায়ী থেকে বাজারে বেরোনো মানুষ প্রত্যেকেই স্বতঃস্ফূর্তভাবে এগিয়ে এসে বিমান বসুর হাতে থাকা বালতিতে অর্থ সাহায্য করেছেন।

এদিন অসংখ্য সাধারণ মানুষ বিমান বসুকে সামনে পেয়ে তাঁর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করার ছবিও ধরা পড়েছে আমাদের ক্যামেরায়। এমনকি প্রথম প্রজন্মের অনেক ভোটারদের মধ্যে তাঁর সঙ্গে ছবি তোলার জন্য হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। বিমান বসুর উপস্থিতিতে অর্থ সংগ্রহ কর্মসূচীতে উজ্জীবিত বাম কর্মী সমর্থকরা।

এদিনের কর্মসূচীতে বিমান বসু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রে দলের প্রার্থী অমিয় পাত্র, জেলা সম্পাদক অজিত পতি, সিপিএম নেতা প্রভাতকুসুম রায়, প্রতীপ মুখোপাধ্যায় অস্মিতা দাশগুপ্ত প্রমুখ।

এই প্রসঙ্গে সিপিএম নেতা প্রতীপ মুখোপাধ্যায় বলেন, বিমান বসুকে নিয়ে সাধারণ মানুষের কি আগ্রহ রয়েছে। দলের এই কর্মসূচী জনমানসে আলাদা একটা ছাপ ফেলেছে বলেও তিনি মনে করেন।