স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: অসমের মত এ রাজ্যেও জারি হতে চলেছে এনআরসি৷ এমনকী রেশন কার্ড সংশোধন না করলে সেই ব্য়ক্তিকে বিদেশি বলে গণ্য় করা হবে৷ এই ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়তেই আতঙ্ক গ্রাস করে মালদহকে৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্য়ে গুজব ছড়ায় রেশন কার্ডে সংশোধনী না আনলে যে কোনও ব্য়ক্তিকে অনাগত অভিবাসী বলে গণ্য় করা হবে৷

মঙ্গলবার সকাল থেকে এই গুজবে জেরবার হয়ে যায় মালদহ৷ মালদহের কালিয়াচকে এনআরসির গুজব ছড়ায়৷ কালিয়াচক ১ নং ব্লক অফিসে ভিড় জমান সাধারণ মানুষ৷ এমনিতেই সকাল থেকে ব্লক অফিসে ভিড় ছিল রেশন কার্ড সংশোধনের জন্য়৷ তারই মাঝে এই গুজবে সমস্যা তৈরি হয়৷

গোটা পরিস্থিতি সামাল দিতে আসরে নামেন কালিয়াচকের বিডিও৷ গুজবে কান না দেওয়ার জন্য মাইকে প্রচার করে প্রশাসন৷ কালিয়াচক ১নম্বর ব্লকের বিডিও সন্দীপ ঘোষ বলেন, ৭ই সেপ্টেম্বর থেকে ২৭শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সমস্ত রকম ডিজিটাল রেশন কার্ডের ভুল সংশোধন করা হবে এমনই নির্দেশ আসে। সেই মতো প্রতিটি ব্লকে এর কাজ শুরু হয়েছে। মানুষ সেটাকে ভুল বুঝে এই বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে। প্রশাসনের আধিকারিকেরা তাদের ইতিমধ্যেই বোঝাতে শুরু করেছে। আশা করছি সমস্যার সমাধান খুব শীঘ্রই হয়ে যাবে

রেশন কার্ড সংশোধন ঘিরে রীতিমত বিভ্রান্তিতে মানুষ। কালিয়াচক ১ ব্লক অফিসে হাজার হাজার মানুষ সকাল থেকেই ভিড় জমাচ্ছেন। মানুষের ধারণা, সংশোধন না করলে বিতাড়িত হতে হবে দেশ থেকে। গুজব রুখতে আসরে নেমেছেন প্রশাসনিক কর্তারা। কালিয়াচক ১ ব্লকের বিডিও সন্দীপ ঘোষ,কালিয়াচক থানার আইসি আশিস দাস ,পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি আতাউর রহমান সহ প্রশাসনের কর্তারা মানুষকে বোঝাচ্ছেন।

অন্যদিকে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি আতাউর রহমান জানান, এনআরসি নিয়ে গুজবের জেরে মানুষের মধ্যে ভুল বার্তা পৌঁছেছে। আর যার জেরে হাজার হাজার মানুষ সকাল থেকেই ভিড় জমাচ্ছেন। মানুষকে সচেতন করতে ইতিমধ্যেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে এবং মানুষকে বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।