file picture

নয়াদিল্লি: আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। তার মধ্যেই মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে যাবে যে, ক্ষমতায় কে আসছে। যদিও এক্সিট পোল বলছে যে, বিপুল আসন নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসছেন মোদীই, তবু ও আসল ফলাফল প্রকাশ্যে না আসা পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না।

এরই মোদীর ক্ষমতায় ফেরার আশঙ্কায় ভুগতে শুরু করেছে পাকিস্তান। মোদীর আমলেই হয়েছে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, বালাকোটে ঢুকে এয়ারস্ট্রাইক করেছে বায়ুসেনা। তাই পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে মোদীর ফেরার আতঙ্কে ভুগছে পাকিস্তান।

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রসঙ্গে তুলে পাকিস্তানের মানুষ চাইছে, যাতে মোদী আর ক্ষমতায় না ফেরে। এতে পাকিস্তানের ক্ষতি হবে বলেই মনে করছে অনেকে।

পাকিস্তানের এক সংবাদমাধ্যমে লাহোরের বাসিন্দা শাহি আলম বলেন, ‘মোদী পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছেন। ওনার আর ক্ষমতায় ফেরা উচিত নয়।’

আইজাজ নামে আর এক ব্যক্তি মনে করেন, কোনোভাবেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করবে না বিজেপি। তিনি নিশ্চিত যে বেশি ভোট পাবে না মোদী। আর তাতেই ভাল হবে পাকিস্তানের।

যদিও ভোটের আগে মোদীকে চেয়ে বার্তা দিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইমরান বলেন, লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলে নরেন্দ্র মোদী জয়ী হয়ে ফের প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসলে তবে কাশ্মীর নিয়ে একটা আলোচনার পথে আসা সম্ভবপর হবে৷

তিনি আরও বলেছিলেন, বিজেপি না এসে যদি ক্ষমতায় কংগ্রেস আসে তাহলে কাশ্মীর সমস্যার কোনও সমাধান হবে না, বিষয়টি আরও স্পর্শকাতর হয়ে উঠতে পারে৷ তাঁর মতে, আফগানিস্তান, ভারত, ইরান, এই প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান পাকিস্তান এবং পাক নাগরিকদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়৷