স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: একে উলট পুরাণ বলা চলে বৈকি৷ একদিকে যখন তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে পদ্ম শিবিরে যোগ দেওয়ার হিড়িক রাজ্য জুড়ে, সেখানে বাঁকুড়া কিছুটা স্বস্তি দিল রাজ্যের শাসক দলকে৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে ঘর গোছাতে শুরু করেছে তৃণমূল৷

শুক্রবার বাঁকুড়ায় বিজেপি-সিপিএম থেকে প্রায় ৩৫০ পরিবারকে তৃণমূলে এনে মাষ্টারস্ট্রোক দিলেন দলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। শুক্রবার জয়পুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস ভবনে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সোনামুখীর পাঁচালের ইছারিয়া-জগদ্দলার প্রায় ৩৫০ পরিবার বিজেপি-সিপিএম ছেড়ে তাদের দলে যোগ দেন৷ তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মন্ত্রী। এদের মধ্যে পাঁচাল অঞ্চল বিজেপি নেতা দয়াময় রায়ও রয়েছেন বলে তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছে।

বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে আসা দয়াময় রায় এক সময় সিপিএমের পার্টি সদস্য ছিলেন বলে দাবি করে বলেন, স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভের কারণে পরে বিজেপিতে যোগ দিই। বর্তমানে বিজেপির ভোট পরবর্তী হিংসা ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও সভাপতি শ্যামল সাঁতরার অনুপ্রেরণায় আজ আমরা তৃণমূলে যোগ দিলাম।

তৃণমূলের বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক সভাপতি শ্যামল সাঁতরা বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে প্রায় প্রতিদিনই অসংখ্য মানুষ আমাদের দলে যোগ দিচ্ছেন। বর্তমান সময়ে বিজেপি ও সিপিএম ছেড়ে মানুষ দলে দলে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন বলেও তিনি দাবি করেন।