মাল: করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। লকডাউন চলাকালীন বাড়ির বাইরে বেরোনোয় সরকারি নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সেই নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা না করেই শুধুই হাতি দেখতে বুধবার সকালে মাল ব্লকের কুমলাই পঞ্চায়েত এলাকায় উপচে পড়া ভিড়।

বুধবার ভোরে কুমলাই গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকায় একটি বুনো দাঁতাল দাপিয়ে বেড়ায়। হাতি দেখতে লকডাউন উপেক্ষা করে কাতারে কাতারে বাসিন্দাদের ভিড় জমে যায়। মাল ব্লকের পূর্ব ডামডিম, নিজামবাড়ি, নেপুচাপুর চা বাগান চত্বরে ঘর ছেড়ে বহু মানুষ বাইরে বেরিয়ে পড়েন।

তাদের কয়েকজন হাতিকে লক্ষ্য করে ইট, পাথর মারতে শুরু করে বলে অভিযোগ উঠেছে। আঘাত পেয়ে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে হাতিটি। এলাকার বেশ কয়েকটি কাঁচা বাড়ি ভাঙচুর করে দাঁতাল। সুঁড়ে পেঁচিয়ে আছাড় দিয়ে ভাঙে গাছের ডাল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আচমকা লোকালয়ে বেরিয়ে পড়া হাতিটি অসুস্থ। অন্যদিকে, গরুমারা বন্যপ্রাণ বিভাগের জানানো হয়েছে হাতিটিকে জঙ্গলে ফিরিয়ে দেওয়ার সবরকম চেষ্টা করে চলছে। তবে স্থানীয়দের আচরণের জেরে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে বনকর্মীদের।

করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। মারই এই ভাইরাস যাতে আরও ছড়িয়ে না পড়ে সেই কারণেই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। একইসঙ্গে লকডাউন না মারলে পুলিশকেও যথোপযুক্ত পদক্ষেপ কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনিক স্তর থেকে। টিভি, সোশ্যাল মিডিয়ায় বারবার সতর্কতামূলক প্রচার চলছে প্রশাসনের তরফে।

প্রশাসনের সতর্কতামূলক পদক্ষেপ সত্বেও একাংশের মানুষের অসচেতন মানসিকতার জেরেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আরও ছড়িয়ে পড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে। বুধবার মাল ব্লকের এই ঘটনাও অসচেতন সমাজের একাংশকেই ফের একবার তুলে ধরল।