ওয়াশিংটন: আগামী সপ্তাহ থেকেই করোনায় মৃত্যুমিছিল শুরুর আশঙ্কা মার্কিন প্রশাসনের। মার্কিন প্রশাসনের আশঙ্কা, করোনায় আমেরিকায় এক লক্ষ থেকে আড়াই লক্ষ পর্যন্ত মানুষের মৃত্যু হতে পারে। সেই আশঙ্কা করেই এবার ১ লক্ষ করোনা আক্রান্ত মৃতদেহ বহনকারী ব্যাগের বরাত দিয়েছে পেন্টাগন।

বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করেছে মারণ এই ভাইরাস। গোটা পৃথিবীর মধ্যেই আমেরিকাতেই করোনার আক্রমণ সবচেয়ে বেশি। ইতিমধ্যেই আমেরিকায় ৩ লক্ষেরও বেশি মানুষের শরীরে কোভিড-19-এর সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

শনিবার রাত পর্যন্ত আমেরিকায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮,২৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুধু গত ২৪ ঘণ্টাতেই আমেরিকার ৮২৮ জন মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। করোনার আক্রমণে আগামী সপ্তাহ থেকে আমেরিকায় মৃত্যুমিছিলের আশঙ্কা করেছেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

আমেরিকায় করোনা ভাইরাসের আক্রমণ যে কতটা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে, তা মঙ্গলবার খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্টের কথাতেই পরিস্কার হয়ে গিয়েছিল। ওই দিন ডোনল্ড ট্রাম্প জানিয়েছিলেন, আগামী ২ সপ্তাহ আমেরিকার কাছে অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক হতে চলেছে। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘সামনের ২ সপ্তাহ আমাদের কাছে খুবই যন্ত্রণদায়ক হতে চলেছে৷ আমাদের শক্তির পরীক্ষা হবে। পরিস্থিতির মোকাবিলার সবরকম চেষ্টা হবে।’

মার্কিন প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনায় দেশে বিপুল সংখ্যায় মৃত্যুর আশঙ্কা করে এখন ১ লক্ষ মৃতদেহবহনকারী বিশেষ ব্যাগের বরাত দেওয়া হয়েছে। বিশেষ ওই ব্যাগে ভরে মৃতদেহ সৎকারের ব্যবস্থা করলে মৃতদেহ থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থাকবে না। ফলে আরও প্রাণহানি বা মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমবে।

অন্যদিকে, করোনার চিকিৎসায় কার্যকরী ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন চেয়ে ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ফএানে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই মুহূর্তে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের স্টক নেই আমেরিকার হাতে। তাই ভারত থেকে এই ওষুধ আমদানি করতে চাইছে আমেরিকা।

যদিও করোনা থাবা বসাতেই ওষুধ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। করোনার সংক্রমণ রুখতে এবার হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আবেদন জানিয়েছেন ট্রাম্প।