স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাতের অন্ধকারে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনরত পার্শ্ব শিক্ষকদের উপর পুলিশের লাঠি চালানোর ঘটনায় উত্তাল নদিয়ার কল্যাণী। শিক্ষিকাদের শ্লীলতাহানি করা হয়েছে বলেও পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র।

রবিবার প্রেস বিবৃতি দিয়ে তিনি বলেন, এ কোন রাজ্যে বাস করছি আমরা! সমাজ গড়ার কারিগর যে শিক্ষক -শিক্ষিকা,যাঁদের সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া আমাদের দায়বদ্ধতা সেই শিক্ষক সমাজের উপর এ রাজ্যে রাতের অন্ধকারে নেমে আসে রাষ্ট্রশক্তির ঘৃণ্য আক্রমণ! যেভাবে পার্শ্ব শিক্ষকদের রাজ্য সরকারের প্রশাসন দ্বারা পুলিশ দিয়ে পেটানো হলো,তা যেকোনো সভ্য সমাজের কাছেই এক কলঙ্কজনক অধ্যায়।

আরও পড়ুন : নেতাজীর সঙ্গে কী হয়েছিল তা জানার অধিকার আছে মানুষের: মমতা

পূর্ণশিক্ষক করার দাবি নিয়ে শুক্রবার থেকেই কল্যাণী বাস টার্মিনালের কাছে আমরণ অনশনে বসেছেন পার্শ্বশিক্ষকরা। পুলিশ এর তরফ থেকে অনশনকারীদের হঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে।

ওই পার্শ্ব শিক্ষকদের বক্তব্য, অনশনমঞ্চ ফাঁকা করতে শনিবার সন্ধ্যেবেলা পুলিশ তাঁদের উপর বেপরোয়া লাঠিচার্জ করে। বাদ যাননি শিক্ষিকারাও। তাঁদেরও হেনস্থা করা হয়েছে বলে অভিযোগ। পুলিশ-শিক্ষকদের খণ্ডযুদ্ধে এক শিক্ষিকার ব্লাউজ ছিঁড়ে গিয়েছে বলেও অভিযোগ।পুলিশের লাঠিচার্জ এ বেশ কয়েকজন শিক্ষক আহত হয়েছেন। তাদের নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

আরও পড়ুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সিদ্ধান্ত, কেন্দ্রীয় নিরাপত্তার ব্যবস্থা শোভন-বৈশাখীর জন্য

এদিকে পুলিশি মারের প্রতিবাদে সোমবার থেকে ক্লাস বয়কটের ডাক দিয়েছেন পার্শ্বশিক্ষকরা।