মুম্বই: পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেছেন বাঙালি অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ। এবার সেই অভিযোগের বিষয়ে মুখ খুলল মহিলা কমিশন। কমিশনের চেয়ার পার্সন বলেছেন অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেবেন তিনি।

সংবাদসংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পায়েল অভিযোগ করেন, নিজের বাড়িতে ডেকে অনুরাগ তাঁর শ্লীলতাহানি করেন। পায়েল বলেন, অনুরাগ কাশ্যপের সঙ্গে আমার ফেসবুকের মাধ্যমে আলাপ। ২০১৪-১৫ সালে তার সঙ্গে আমি প্রথম দেখা করি। সঙ্গে আমার ম্যানেজারও ছিলেন। সেদিন খুবই ভালো ব্যবহার করে। দ্বিতীয় দিন, আমাকে ওর বাড়িতে ডেকে পাঠায় অনুরাগ। সেদিন যা করেছিল, তা আমি আজও ভুলতে পারিনি।

তৃতীয় দিন তাঁকে অন্য ঘরে নিয়ে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ অভিনেত্রীর। পায়েলের অভিযোগ, সেখানে অনুরাগ একটি অ্যাডাল্ট ফিল্ম চালিয়ে দেয়। অভিনেত্রী বলেন, আমি তখন ওর আসল উদ্দেশ্য উপলব্ধি করলাম। নোংরাভাবে আমার শরীর ছুঁতে থাকে কাশ্যপ, আমি বেরিয়ে আসতে চাইছিলাম।

পায়েল আরও বলেন, এরপর অনুরাগ নিজের পরনের পোশাক খুলে ফেলে। আমার পোশাকও খোলার চেষ্টা করে। আমার শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করে। আমি বারবার বলতে থাকি, আমার পছন্দ হচ্ছে না। কিন্তু, আমার কথায় কোনও কর্ণপাত না করে ও নিজের নোংরা কাজ চালিয়ে যেতে থাকে। যখন ও বুঝতে পারে, আমাকে বাগে আনতে পারছে না, তখন সে বাধ্য হয়ে বলে, প্রস্তুত হয়ে পরের বার আসতে।

ড্রাগ থেকে নেপোটিজম। এই মুহূর্তে বিতর্কের শীর্ষে বলিউড। একের পর এক প্রথম সারির অভিনেতা-পরিচালকদের বিরুদ্ধে সামনে আসছে একাধিক অভিযোগ। তার মধ্যেই এবার মুখ খুললেন বাঙালি অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ।

সম্প্রতি এক সংবাদমাধ্যকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই অভিযোগের কথা জানান পায়েল। পাশাপাশি একটি ট্যুইট করেন। সেখানে লিখেছেন, ‘অনুরাগ আমার উপর জোর করেছিল, আর খুব খারাপ ভাবে।’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ট্যাগ করে তিনি লিখেছেন, এই সৃজনশীলের ব্যক্তিত্বের পিছনে আসল মানুষটাকে চিনুন। আমি জানি উনি আমার ক্ষতি করতে পারেন। আমার বিপদ হতে পারে। আমাকে সাহায্য করুন।

পায়েল অবশ্য জানিয়েছেন যে এই অভিযোগ সত্যি হলেও তাঁর কাছে কোনও প্রমাণ নেই। কারণ সেই ঘটনার পর একাধিকবার ফোন বদলেছেন তিনি।

তবে জাতীয় মহিলা সুরক্ষা কমিশনের চেয়ার পার্সন রেখা গোস্বামী টুইট করেন পায়েলকে ট্যাগ করে। সেখানে তিনি লেখেন, ‘‘আপনি মহিলা সুরক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সনের কাছে অভিযোগ জানাতে পারেন। কমিশন বিষয়টি দেখবে।’’

কঙ্গনা রানাউতও চুপ করে বসে থাকেননি পায়েলের অভিযোগ-টুইট দেখে। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তিনি লিখেছেন, ‘সকলের কথাই গুরুত্বপূর্ণ’। এর পর তিনি #মিটু এবং #অ্যারেস্টঅনুরাগকাশ্যপ জুড়ে দিয়েছেন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।