ম্যাঞ্চেস্টার: চোটের জন্য বেশ কিছুদিন মাঠের বাইরে রয়েছেন পল পোগবা। লিগ টেবিলে দলের অবস্থান ভালো না হলেও এখনই মাঠে ফেরা হচ্ছে না ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের ফরাসি তারকার। অন্তত ডিসেম্বরের আগে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে মাঠে নামা কঠিন পোগবার। এমনটাই জানালেন ম্যান ইউ কোচ ওলে গানার সোল্কজায়ের।

গত অগস্টে সাউদাম্পটনের বিরুদ্ধে ম্যাচের সময় ডান পায়ের গোড়ালিতে অস্বস্তি অনুভব করেন পোগবা। কিছুদিন মাঠের বাইরে কাটানোর পর গত মাসে আর্সেনালের বিরুদ্ধে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন ফরাসি তারকা। তবে বুঝতে পারেন চোট পুরোপুরি সেরে ওঠেনি। আবহাওয়া বদলে দুবাইয়ে চোট সারিয়ে ওঠার প্রক্রিয়ার মধ্যে ছিলেন পোগবা। ম্যাঞ্চেস্টারে ফেরার পর স্বাভাবিকভাবেই ব্রিটিশ ফুটবলমহলের আগ্রহ তৈরি হয় ম্যান ইউ তারকার মাঠে ফেরার বিষয়ে। কোচ ওলে গানার রবিবার নিশ্চিত করে দেন যে, আরও একমাস সময় লাগবে পোগবার পুরোপুরি সুস্থ হয়ে মাঠে ফিরতে।

আরও পড়ুন: প্রিমিয়র লিগে জয়ে ফিরল ম্যান ইউ

নরউইচের বিরুদ্ধে ম্যাচ জয়ের পর পোগবা প্রসঙ্গে ওলে গানার বলেন, ‘আমার মনে হয় না ডিসেম্বরের আগে ওকে পাওয়া যাবে বলে। আরও কিছুদিন ওকে মাঠের বাইরে থাকতে হবে। সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে ওর আরও কিছুটা সময় দরকার। তাই আমি মনে করি না সামনের কয়েকটা ম্যাচে ও খেলতে পারবে বলে।’

পরে ম্যান ইউ কোচ আরও বলেন, ‘পরিস্থিতি খুব ভালো হলে আন্তর্জাতিক বিরতির পর শেফিল্ড ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে (২৪ নভেম্বর) ওকে দেখা যেতে পারে। না হলে ডিসেম্বরের আগে কোনও সম্ভাবনা নেই। পায়ের পুরনো চোটের থেকেও ওর গোড়ালি নিয়ে সমস্যা বেশি। আমি ডাক্তার নই, তবে এটুকু বুঝি যে ওর চোট সারতে বাড়তি একটু সময় দরকার।’

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের বিরুদ্ধে দিন-রাতের টেস্ট দেখতে পারে ইডেন, জল্পনা তুঙ্গে

উল্লেখ্য, ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের শেষ ১০টি ম্যাচের মধ্যে ৮টি’তে খেলতে পারেননি পোগবা। যদিও রেড ডেভিলসরা ব্যর্থতার ধারা কাটিয়ে ওঠার ইঙ্গিত দিচ্ছে। গত সপ্তাহে লিগ টপার লিভারপুলের কাছ থেকে পয়েন্ট কেড়েছে ম্যান ইউ। পরে ইউরোপা লিগে পার্টিজান বেলগ্রেডের বিরুদ্ধে জয় তুলে নিয়েছে। এবার প্রিমিয়র লিগে নরউইচকে হারিয়ে লিগ টেবিলের সাত নম্বরে উঠে এসেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। এক সময় পয়েন্ট টেবিলের প্রথম দশের বাইরে ছিটকে যেতে হয়েছিল সোল্কজায়েরদের।

আরও পড়ুন: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাপুয়া নিউগিনি

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.