স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: ছাদ থেকে খসে পড়ছে চাঙর। এই ঘটনায় আতঙ্ক গ্রাস করেছে হাওড়া জেলা হাসপাতালে। গত কয়েকদিন ধরেই এমন ঘটনা ঘটছে বলে অভিযোগ। স্বাস্থ্য আধিকারিক জানিয়েছেন হাসপাতালের তরফ থেকে ইতিমধ্যেই পূর্ত দফতরকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

পূর্ত দফতরের ইঞ্জিনিয়াররা ওই জায়গা পরিদর্শন করেছেন। যেখানে এমন ঘটনা ঘটেছে সেখানকার রোগীদের বেড অন্যত্র সরানো হয়েছে। সব ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। রোগী পরিষেবা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক রয়েছে। এদিকে ছাদ থেকে চাঙর খসে পড়ায় যে কোনও সময়ে দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন এখানকার রোগীরা।

সুস্থ হতে হাসপাতালে ভরতি হয়ে ছাদের চাঙর খসে দুর্ঘটনার আশঙ্কায় দিন গুনছেন হাসপাতালে থাকা রোগীরা। গত প্রায় সাত দিন ধরে ছাদ থেকে খসে পড়ছে চাঙর। পরিস্থিতির কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সংশ্লিষ্ট দফতরকে। এখনও সুরাহা মেলেনি।

হাওড়া জেলা হাসপাতালের জরুরি এবং বহির্বিভাগ যে ভবনে রয়েছে সেই ভবনের চার তলায় রয়েছে পুরুষ মেডিক্যাল সহ একাধিক ওয়ার্ড। ছাদের কিছু অংশ থেকে নিয়মিত ভেঙে পড়ছে চাঙর। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও দুর্ঘটনা ঘটেনি।

হাসপাতালে ভরতি থাকা এক রোগী জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি নিজের চোখে একটি চাঙর ভেঙ্গে পড়তে দেখেন। ওই একই ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আরেক রোগী জানান গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরে এই ঘটনা ঘটে চলেছে। একবার আধিকারিকরা দেখে গেলেও এখনও অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয়নি।

এই বিষয়ে হাওড়া জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডঃ ভবানী দাস জানান, এই ঘটনার জেরে চিকিৎসা পরিষেবায় কোনও সমস্যা হচ্ছে না। যে সব জায়গায় চাঙর ভেঙে পড়েছে সেইসব জায়গার বেডগুলি অন্যত্র সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। হাসপাতাল থেকে পূর্ত দফতরকে বিষয়টি জানালে তাঁদের ইঞ্জিনিয়াররা পরিদর্শন করেছেন। শীঘ্রই সমস্যা মিটবে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও