ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: পাসপোর্ট নিয়মে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হচ্ছে৷ জন্মের নথির পাশাপাশি বেশ কিছু নথির আর কোনও প্রয়োজন হবেনা পাসপোর্ট তৈরি করাতে গেলে৷ এখন পাসপোর্ট তৈরি করা আরও অনেক সহজ হয়ে যাবে বলে খবর৷ পাসপোর্ট থাকা মানে জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ নথি থাকা৷

সেই পাসপোর্ট তৈরি করানো আগে অনেক কঠিন ছিল৷ বর্তমানে পাসপোর্ট তৈরিকে আরও সহজ হতে চলেছে৷ এতদিন জন্মের নথি বা জন্মের সার্টিফিকেট বাধ্যতামূলক ছিল কিন্তু এখন আর তা থাকছেনা৷ বিদেশ মন্ত্রালয় থেকে পাসপোর্ট তৈরিতে বেশ কিছু বদল করা হয়েছে৷

তার মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল জন্মের সার্টিফিকেট৷ শুধু তাই নয়৷ এবার থেকে বিবাহিত ও বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেও বেশ কিছু নিয়মের পরিবর্তন করা হয়েছে৷

পাসপোর্ট তৈরির ক্ষেত্রে এতদিন ২৬ জানুয়ারি ১৯৮৯ ও সেই সময়ের পরে যাঁরা জন্মেছেন তাঁদের ক্ষেত্রে জন্মের সার্টিফিকেট দেওয়া আবশ্যক ছিল৷ কিন্তু এবার থেকে যেকোনও জায়গার স্বীকৃত বা অনুমোদিত কর্তৃপক্ষের দেওয়া জন্ম মৃত্যু রেজিষ্ট্রারের নথিই গ্রাহ্য হবে৷ যেকোনও একাডেমিক বোর্ডের দেওয়া ট্রান্সফারের সার্টিফিকেট বা স্কুল লিভিং সার্টিফিকেটও এক্ষেত্রে মান্যতা পাবে৷ এর পাশাপাশি প্যান কার্ড, আধার কার্ড বা ই-আধার, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ভোটার আইডি কার্ড এক্ষেত্রে মান্যতা পাবে৷ মা বাবার বিবরণ দেওয়াও এবার থেকে আবশ্যিক বা বাধ্যতামূলক নয়৷

এর পরিবর্তে আপনি আপনার আইনি অভিভাবকের নামও দিতে পারেন৷ এক্ষেত্রে কোনও মুনি ঋষি বা সাধু তাঁদের গুরুর নামও নথিভুক্ত করাতে পারেন৷ পাশাপাশি অতিতে পাসপোর্ট তৈরি করতে যতগুলো কলাম ছিল তা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ আগে কলামের সংখ্যা ছিল ১৫৷ এখন কলাম কমিয়ে ৯টি কলাম করা হয়েছে৷

আগের ফর্মের কলামের এসিডিইজে এবং কে কলাম গুলি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ এবং বেশকিছু কলামকে একসঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে৷ এছাড়াও আগে প্রতিটি কলাম একজন নটারি বা কার্যকরী মেজিস্ট্রেট বা প্রথম শ্রেণীর বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট এটেস্টেড করানো হত৷ কিন্তু এখন সে নিয়ম আর রইলনা৷ আবেদনকারী এবার থেকে সেল্ফ ডিক্লারেশন বা স্বয়ং ঘোষনা দিতে পারেন৷