স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: একাধিক দাবিতে সকাল থেকেই অবরোধ আন্দোলনে ভারত জাকাত মাঝি পারগাণা মহল৷ আর তার জেরেই হয়রানির শিকার হতে হল সড়ক পথ থেকে রেল পথের সকল যাত্রীদের৷ আদিবাসী সংগঠনের রেল অবরোধের জেরে সকাল থেকে বেলদা স্টেশনে দাঁড়িয়ে রয়েছে ধৌলী এক্সপ্রেস৷ বাতিল হয়েছে একাধিক ট্রেন৷ ক্রমশ বেড়ে চলেছে যাত্রীদের ভিড়৷

আরও পড়ুন: কৃষকরত্নের টাকা এলাকার উন্নয়নে তুলে দিলেন হাজি শেখ

পাশাপাশি আগুন লেগে যায় স্টেশনে৷ রেলকর্মীর বাইকেও আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে৷ বিক্ষোভের জেরে একেবারে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে স্টেশনটি৷ অভিযোগ, ১৫ ঘণ্টা ধরে রেল অবরোধের জেরে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয় গোটা চত্বরে৷ কিছু মুখ ঢাকা দুষ্কৃতী স্টেশনে ঢুকে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে৷ তবে কখন ট্রেন ছাড়বে এখনও পর্যন্ত কোনও সদুত্তর পাওয়া যায়নি রেলের তরফে৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে আরপিএফ মোতায়েন করা হয়৷

রেল অবরোধের জেরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে গোটা দক্ষিণ-পূর্ব রেল। ইতিমধ্যে মুম্বাই, ওড়িশা দক্ষিণভারত-গামী প্রায় সমস্ত ট্রেন বাতিল করেছে দক্ষিণ পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষ। হাওড়া-গামী ট্রেনগুলি এসে না পৌঁছনোয় উলটো দিকের ট্রেনগুলিও ছাড়া যাবে না বলে জানানো হয়েছে৷ একের পর এক ট্রেন বাতিল হতে থাকায় হাওড়া স্টেশনের নিউ কমপ্লেক্সে শুরু হয়েছে যাত্রী বিক্ষোভ। এই স্টেশন থেকেই ছাড়ে দক্ষিণ-পূর্ব রেলের সব দূরপাল্লার ট্রেন। যাত্রীদের অভিযোগ, ঘণ্টার পর ঘণ্টা অবরোধ থাকলেও অবরোধ তুলতে রেলের তরফে কোনও তৎপরতা নেই।

অবিলম্বে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করার দাবিতে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন যাত্রীরা৷ বাতিল করা ট্রেনগুলির তালিকা দেওয়া হল৷ বাতিল হয়েছে হাওড়া-চেন্নাই করমণ্ডল এক্সপ্রেস, হাওড়া-চেন্নাই মেল, হাওড়া-আমদাবাদ এক্সপ্রেস, হাওড়া-হাতিয়া এক্সপ্রেস, হাওড়া-পুরী এক্সপ্রেস, হাওড়া-পুণে আজাদ হিন্দ এক্সপ্রেস, হাওড়া-মুম্বাই গীতাঞ্জলী এক্সপ্রেস, হাওড়া-কন্যাকুমারী এক্সপ্রেস, হাওড়া-জগদলপুর এক্সপ্রেস, জ্ঞানেশ্বরী এক্সপ্রেস সহ একাধিক ট্রেন৷

আরও পড়ুন: সত্যি কী রিমেক ‘হইচই আনলিমিটেড’! সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

আর এর জেরে বিপাকে পড়েছেন হাজার হাজার পরীক্ষার্থী৷ মঙ্গলবার রেলের পরীক্ষা দিতে যাওয়ার জন্য হাজার হাজার পরীক্ষার্থী বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পড়েছে৷ কিভাবে পরীক্ষা দেবে সেই চিন্তা গ্রাস করেছে আটকে পড়া পরীক্ষার্তীদের৷ তবে ইতিমধ্যেই আরআরবি-র তরফে জানানো হয়েছে, যে সকল পরীক্ষার্থীরা আটকে পড়েছে তাদের জন্য ফের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে৷