নয়াদিল্লি: লোকসভার পর রাজ্যসভাতেও পাশ হয়ে গেল তিন তালাক বিল। এই বিল অনুযায়ী তিন তালাক ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে।

আর এই বিল পাশ নিয়ে যখন প্রশংসা করছে বিভিন্নমহল, তখন পুরনো সুরেই বিরোধিতা করলেন এআইএমআইএম সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। তাঁর দাবি, বিভিন্নভাবে যে মুসলিমদের উপর অত্যাচার চলছে, তারই একটা অংশ এই বিল।

মঙ্গলবার রাজ্যসভায় তিন তালাক বিল পাশ হওয়ার পর ট্যুইট করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। প্রথম থেকেই এই বিলের বিরোধিতা করে আসছিলেন ওয়াইসি। এদিন তিনি টুইটারে লেখেন, “২০১৪ থেকে মুসলিমদের উপর যে অত্যাচার চলছে এটা তারই একটা অংশ। গুন্ডা দিয়ে বা পুলিশের অত্যাচারে আমাদের দমিয়ে রাখা যাবে না। ভারতের সংবিধানে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস আছে। আমরা ন্যায়বিচার ও অধিকারের জন্য লড়াই করব।

অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডও সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছে। এটা গণতন্ত্রের কালো দিন বলে মন্তব্য করেছে তারা। তারা বার্তা দিয়ে জানিয়েছে, তারা সব মুসলিম মহিলাদের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

মঙ্গলবার রাজ্যসভায় এই বিলের পক্ষে ৯৯টি ভোট পড়ে৷ যেখানে বিপক্ষে ভোট পড়ে ৮৪টি৷ বিলের বিরোধিতায় রাজ্যসভা থেকে ওয়াক-আউট করে এআইডিএমকে ও জেডিইউ, ওয়াক-আউট করে টিআরএস-ও৷ এর আগে, বৃহস্পতিবার লোকসভায় এই বিল পাস হয়। এই বিল অনুসারে তিন তালাক দেওয়ার অপরাধে এক পুরুষের কারাদণ্ড হতে পারে।

তিনবার পরপর তালাক বলে ডিভোর্স দেওয়ার রীতি মুসলিম ধর্মে রয়েছে৷ কিন্ত এই বিল কার্ষকরী হওয়া এবার থেকে যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য করা হবে। মঙ্গলবার রাজ্যসভাতে এই বিল পাশের পর ট্যুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানান, সমগ্র দেশের জন্য আজ একটি ঐতিহাসিক দিন৷ দ্বিতীয়বার মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর এটিই প্রথম বিল যেটা লোকসভায় পেশ করা হয়। এই বিলকে বারবার মুসলিম-বিরোধী বলে উল্লেখ করেন এআইএমআইএম সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসি।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও