স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট : শনিবার রাত থেকেই উত্তপ্ত গঙ্গারামপুর৷ দুই গোষ্ঠীর বিবাদে গুলিবিদ্ধ হলেন এক তৃণমূল কর্মী৷ দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে শনিবার রাতে কাঁধে গুলি লাগে আমন রায় নামে ওই তৃণমূল কর্মীর৷ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ওই ব্যক্তি হাসপাতালে ভরতি। গুলি চালানোর এই ঘটনায় জড়িত অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে।

শনিবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ গঙ্গারামপুরের জাহাঙ্গীরপুর এলাকায় স্থানীয় বাবলু রায়ের নেতৃত্বে কয়েকজন আমন রায়ের বাড়িতে হামলা চালান বলে অভিযোগ। হামলাকারীরা বাড়িতে ভাঙচুর শুরু করলে আমন রায় পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাঁকে লক্ষ্য করে গুলিও ছোঁড়া হয় বলে অভিযোগ। আমন রায়ের ডান কাঁধের পেছনে গুলি লাগে।

আরও পড়ুন : ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগানের বিরুদ্ধে ফেসবুকে ক্ষোভ উগরে দিলেন মমতা

ঘটনায় গ্রামের মানুষজন ছুটে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাঁকে প্রতিবেশীরা গঙ্গারামপুর সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে ভরতি করান। অপারেশন করে গুলি বের করতে রাতেই তাঁকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

এদিকে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে হামলাকারীরা সকলেই মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। এর আগেও পাশের কাটাতৈর এলাকায় একই ভাবে গুলি চালানোর অভিযোগ রয়েছে বাবলু রায়ের বিরুদ্ধে। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে যে পুকুর সংক্রান্ত বিষয়ে আমন রায় ও বাবলু রায়ের মধ্যে বিবাদ বহুদিনের। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান সেই বিবাদের জেরেই এই হামলা। জেলার পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল অভিযুক্ত পলাতক বাবলু রায়কেও শীঘ্রই গ্রেফতার করে ফেলা সম্ভব হবে তিনি জানিয়েছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.