স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে সরাতে চাইছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এমনই দাবি, রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদারের৷

বৃহস্পতিবার রাতে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নামে যে ব্যানার পড়েছিল, তাতে কোথাও বলা হয়, ‘‘কলকাতার বেহাল দশাকে পুনরায় স্বমহিমায় ফিরিয়ে আনতে আপনি এগিয়ে আসুন শোভনদা।’’ কোনওটায় আবার বলা হয়, ‘‘অসম্পূর্ণ কলকাতার পৌরসভাকে পুনরায় স্বমহিমায় আনতে ফিরে আসুন শোভনদা।’’এ প্রসঙ্গে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, ‘‘এত ঢাকগুড় গুড় করছে কেন! যাঁরা একাজ করেছেন, তাঁরা কতটা শোভনের শুভাকাক্ষী জানি না। তবে শোভনের সক্রিয় রাজনীতিতে থাকা উচিত। ও সঠিক সিদ্ধান্তই নেবে’’।

তৃণমূল মহাসচিবের এমন মন্তব্যে শোভন সম্পর্কে তাঁর আন্তরিকতা রয়েছে বলে মনে করছেন জয়প্রকাশ৷ তাঁর বক্তব্য, বিজেপিতে থাকা এক নেতা (শোভন) সম্পর্কে পার্থ চট্টোপাধ্যায় যেভাবে বললেন যে তিনি চান শোভন চট্টোপাধ্যায় সক্রিয় রাজনীতিতে ফেরত আসুন। তাতে স্পষ্ট তৃণমূলের মহাসচিব ফিরহাদ হাকিমকে মেয়র হিসেবে পছন্দ করেন না৷ উল্লেখ্য, শোভনের বিজেপি যোগের পরও একাধিকবার তাঁর প্রতি নরম মনোভাব দেখিয়েছেন পার্থ৷

বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার অভিযোগ করেছেন ফিরহাদ হাকিমের হাতে পড়ে ডুবেছে কলকাতা পুরসভা। নাগরিক পরিষেবা শেষ হয়ে গিয়েছ, কাজের সার্বিক পরিবেশ ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। চারিদিকে শুধুই দলবাজি চলছে৷ সেই কারণেই তাঁকে মেয়র হিসেবে পছন্দ নয় পার্থর৷

উল্লেখ্য, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে ব্যানার পড়ার তিনদিনের মাথাতেই শ্যামবাজার পাঁচমাথার মোড়-সহ উত্তর কলকাতার বেশ কিছু জায়গায় ফিরহাদ হাকিমকে ফের মেয়র হিসেবে চেয়ে নিয়ে ব্যানার পড়ে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং‌ ফিরহাদ হাকিমের ছবি-সহ ওই ব্যানারে একদম উপরে লেখা রয়েছে, “ধন্যবাদ কলকাতা মহানাগরিক মাননীয় শ্রী ববি হাকিম মহাশয়কে এক বছরের মধ্যে কলকাতাকে বিশ্বের দরবারে শ্রেষ্ঠ আসনে বসিয়ে এক অনন্য থেকে অনন্যতম নজির গড়ার জন্য। আপনার অসাধারণ প্রশাসনিক দক্ষতাকে জানাই কুর্ণিশ ও ধন্যবাদ, যার জন্য কলকাতা কর্পোরেশন পুনরায় তার স্ব-গরিমায় মানুষের সেবায় বিরাজ করছে।’’ ব্যানারের নীচে দু’বার লেখা— ‘ববিদাকে আবার চাই’।