স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ‘‘ওরা কতগুলি নাটকের বোরখা কিনেছে৷ আর সেগুলো পরে ছেলেধরা গুজব ছড়াচ্ছে৷ হিন্দু মাসলমানের মধ্যে দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করছে৷ বেহালাতে এমন ঘটনা ঘটেছে৷ রাত ১টার সময় বাইক মিছিল করেছে বিজেপি৷ যারা মাঝরাতে বাইক মিছিল করে তারা ডাকাত, দাঙ্গাবাজ ছাড়া কিছু নয়৷’’ বিজেপি, আরএসএস-এর বিরুদ্ধে এই অভিযোগের পরই দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করেন ‘‘কিভাবে মাঝরাতে মিছিল করছে বিজেপি? আপনারা সকলে কি করছিলেন? আপনারা কি এলাকায় থাকেন না? ভয় পেয়েছেন নাকি? খোলাখুলি বলুন৷’’

তবে শুধু পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেই নয়, দলের রাজ্যসভার সাংসদ শুভাশিস চট্টোপাধ্যায়, অভিজিৎ মুখোপাধ্যায়, অশোকা মণ্ডলের মতো নেতাদের নাম করে মমতা এদিন বলেন, ‘‘আপানার জানেন না, যারা অশান্তি ছড়াতে চায় তাদের তাড়া করতে হয়, পুলিশের হাতে ধরিয়ে দিতে হয়৷ তবে কেন প্রতিরোধ গড়ে তোলননি? ভয় পাবেন না৷’’

ফাইল ছবি

শুধু তাই নয়, যারা ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে দাঙ্গা বাঁধাতে চাইছে এমন খবর পেলেই সংযত হন, পদক্ষেপ কুরুন৷ সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে খবর দিন৷ দলের কোর কমিটির বৈঠকে এমন পরামর্শই দেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ শুধু তাই নয়, কোন এলাকায় কারা টাকার বিনিময় এই কাজের সঙ্গে যুক্ত তা জানতে পারলে সরাসরি তাঁর বাড়িতে চিঠি দিয়েও অভিযোগ জানানোর কথা এদিন বলেন মমতা৷ মমতার কথায়, ‘‘৩৪ বছরের বাম শাসনকে পরাস্ত করে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় এসেছে৷ তখন ৫ বছরে মোদীকেও সরাতে পারব আমরা৷’’

কোর কমিটির বৈঠকে মমতা এদিন দলের কর্মীদের কে আগের মত জেগে ওঠার পরামর্শ দেন৷ কর্মীদের উদ্দেশ্যে মমতার বার্তা, ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে জবাব দিতে প্রস্তুত হন৷ এই অত্যাচারী স্বৈরাচারী বিজেপি সরকারকে শেষ করতে জেগে উঠুন৷’’ তাঁর কথায়, ‘‘আগামী দিনে দেশে পরিবর্তন আনতে হবে৷ তাই এখন থেকে একটাই স্বপ্ন দেখুন কিভাবে মোদী-শাহের বিদায়ঘণ্টা বাজাতে হবে৷’’