কলকাতা: করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সকালেই প্রয়াত হয়েছেন ফলতার তৃণমূল বিধায়ক তমোনাশ ঘোষ। বিধায়কের মৃত্যু নিয়ে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যে মর্মাহত তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। যা নিয়ে সোশাল মিডিয়ায় বিজেপি রাজ্য সভাপতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন পার্থ।

দীর্ঘ একমাস লড়াইয়ের শেষ হল বুধবার সকালে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে হার মেনেছেন দক্ষিণ ২৪ পরগনার ফলতা বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা দক্ষিনবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ নিগমের চেয়ারম্যান তমোনাশ ঘোষ।

বুধবার সকালেই কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর। এদিন নবান্নে সর্বদলীয় বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়ার আগে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বিষয়টি নিয়ে তাঁর প্রতিক্রিয়া দেন।

দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বিধায়ক তমোনাশ ঘোষের মৃত্যু দুর্ভাগ্যজনক। সরকার ভিআইপিদেরও চিকিৎসার সুষ্ঠু ব্যবস্থা করতে পারছে না। এটা ব্যর্থতা। শাসকদলের বিধায়ক ও সাংসদরা আক্রান্ত হচ্ছেন। তাঁরা সামাজিক দূরত্ব-বিধি মানছেন না। কারণ, মুখ্যমন্ত্রীও মানছেন না। শুধু আমাদের উপর দোষ চাপাচ্ছেন।’

এক বিধায়কের মৃত্যুতে দিলীপ ঘোষের খোঁচা-সুলভ এই মন্তব্যে মর্মাহত রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দুঃখপ্রকাশের পথের চেয়েও সরকারকে আক্রমণের পথে হাঁটায় দিলীপ ঘোষের সমালোচনা করেছেন তৃণমূলের মহাসচিব।

সোশাল মিডিয়ায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় পাল্টা লেখেন, ‘দিলীপবাবু আপনি কী যাবতীয় শ্রদ্ধা এবং বোধগম্যতা হারিয়েছেন? বিজেপি রাজ্য নেতৃত্বের কাছ থেকে এ ধরনের মন্তব্যে আঘাত পেয়েছি। আমরা আমাদের এক সহকর্মীকে হারিয়েছি। মৃত্যুকেও রাজনীতির ঘুঁটি বানালেন।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও