কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ। কারণ তাঁর কথা প্রায়ই অপব্যাখ্যা করার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। বৃহস্পতিবার প্রাথমিক শিক্ষকদের পে-গ্রেড নিয়ে এক শিক্ষক সংগঠনের সাথে তিনি মিটিং করেছেন। শিক্ষকদের বদলি প্রসঙ্গে মহিলাদের নিয়ে তাঁর উত্তরে তৈরি হয় বিতর্ক। সেই ইস্যুতেই শুক্রবার সকালে সোশ্যাল সাইটে পোষ্টের মাধ্যমে তাঁর অবস্থান পরিষ্কার করেছেন।

তিনি বলেছেন, “আমি তো নিজেই মহিলাদের সম্পর্কে ছোটবেলা থেকে যে শিক্ষা পেয়েছি তাতে যেভাবে তার অপব্যাখ্যা হচ্ছে তাতে মর্মাহত। পে-গ্রেড নিয়ে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী যে অনুমতি দিয়েছেন সেই অনুমতি আগের আমলে দেওয়া হয়নি।” কোনও শিক্ষক অসুস্থ থাকলে তার বদলির আবেদনকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে রাজ্য সরকার।

বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে দাবি করেছেন, শিক্ষা দফতর একথা জানানোর পরই “সবাই অসুস্থ হয়ে পড়ছেন”। এই প্রসঙ্গেই শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “বিশেষ করে এত মহিলা শিক্ষিকা রয়েছেন, তাঁরা এত বেশি স্ত্রীরোগে ভুগছেন, আমি নিজেই আতঙ্কিত। এত বেশি মহিলার স্ত্রীরোগ হয় কি করে?”

গতকালের বৈঠকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোকপাত করেন শিক্ষামন্ত্রী। সেগুলির মধ্যে ছিল শিক্ষকদের নানান সুবিধা-অসুবিধার কথাও। এই প্রসঙ্গে আলোচনার সময় উঠে আসে শিক্ষকদের মিউচুয়াল ট্রান্সফারের বিষয়টিও। তখনই এক বিবৃতিতে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে হাততালিতে ভরে ওঠে সভাকক্ষ সাথে হাসির ফোয়ারা। অনেক শিক্ষিকাই এই মন্তব্যকে অবমাননাকর বলেছেন। তবে তাঁর বক্তব্যের এহেন উপস্থাপনায় মন্ত্রী নিজে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।