নয়াদিল্লি: পাব-জি, এই গেমকে এক অন্যতম গেম চেঞ্জার হিসেবেই দেখতে শুরু করেছিল সকলে৷ কারণ একটু একটু করে অনেকেরই প্রিয় হয়ে উঠছিল এই খেলা, যা ক্রমশ নেশাতেও পরিণত হচ্ছিল৷ বলা যায় টক অব দ্য কান্ট্রি হয়ে উঠেছিল এই পাব-জি গেম৷ এই গেমই এবার জায়গা করে নিল প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যেও৷

সামনেই পরীক্ষার সিজন৷ আর তারই আগে দিল্লিতে পরীক্ষা পে চর্চা ২.০ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ সেখানে ছাত্র-ছাত্রী এবং তাঁদের অভিভাবকদের সঙ্গে আলোচনাও করেন তিনি বিভিন্ন সমস্যা এবং তার সমাধান সম্পর্কে৷ সেখানেই উঠে আসে অনলাইন গেম প্রসঙ্গটি৷ এক অভিভাবক প্রধানমন্ত্রীর কাছে পরীক্ষার সময় পড়ুয়াদের অনলাইন গেমে আসক্তি নিয়ে চিন্তা প্রকাশ করলে মোদী সাফ জানান, এই প্রযুক্তি একদিকে যেমন অভিশাপ মনে হচ্ছে তেমনই অন্যদিকে তা আশীর্বাদও হতে পারে সঠিকভাবে ব্যবহার করলে৷

এসময়ই তিনি পপুলার অনলাইন গেম পাব-জির উল্লেখ করেন৷ তিনি ওই অভিভাবককে প্রশ্ন করেন তাঁদের চিন্তার বিষয়টি পাব-জি গেম কিনা৷ মোদীর মুখে এই গেমের কথা শুনে তালকাটোরা স্টেডিয়ামে উপস্থিত সকলে হাততালি দিয়ে ওঠে৷

মোদী জানান, প্রযুক্তি থেকে ছোটদের সরিয়ে নিলে তারা পিছিয়ে পড়বে৷ এটা না করে তাদের আরও প্রযুক্তিতে আরও উৎসাহ প্রদান করা উচিত৷ সেই উৎসাহ কিভাবে দেওয়া হবে সেই উপায়ও বাতলে দেন তিনি৷ মোদী বলেন, শিশুদের রোবট তৈরি করা উদ্দেশ্যে এই প্রযুক্তি ব্যবহার নয়৷ অভিভাবকদেরই উৎসাহ নিয়ে এই প্রযুক্তির বিষয়ে কতা বলতে হবে সন্তানদের সঙ্গে৷ তা খাওয়ার সময়ও বলা যেতে পারে৷ এই অ্যাপ কি? কি তার ব্যবহার, এই সব প্রশ্ন সন্তানদের করলে তারাও উৎসাহ পাবে৷ তারা মনে করবে বাবা-মায়েরা এই বিষয়ে কৌতূহলী৷ যা ইতিবাচক পরস্থিতি এবং চিন্তাভাবনা তৈরি করে৷

প্রসঙ্গত, মোদী সরকার বারবারই ডিজিটাল ইন্ডিয়ার ওপর জোর দিয়েছে৷ আর ডিজিটাল ইন্ডিয়ার অগ্রগতিতেই ফের জোর দিলেন তিনি পরীক্ষা পে চর্চা ২.০ অনুষ্ঠানেও৷