গুয়াহাটি: অসমের ভয়াবহ বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করল ‘আলফা'(স্বাধীনতা)। বুধবারের বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করে নিয়েছে সংগঠনের কমান্ডার পরেশ বড়ুয়া। সিআরপিএফ প্যাট্রলের উপর এই হামলা বলে জানিয়েছে পরেশ বড়ুয়া।

বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। একটি টাটা সাফারি থেকে গ্রেনেড ছোঁড়া হয়েছে বলে দাবি প্রত্যক্ষদর্শীর। পুরো জায়গা ঘিরে ফেলেছে পুলিশ। এলাকা জুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশের চেকিং চলছে ব্যাপক হারে।

বুধবার সকালে আলফা (স্বাধীনতা) জঙ্গি সংগঠনের আরও একটি বড়সড় নাশকতার ছক বানচাল হয় অসমে৷ বিপুল পরিমাণে আগ্নেয়াস্ত্র সহ তিন আলফা জঙ্গি ধরা পড়ে৷ তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক, কার্তুজ৷ তিনসুকিয়া জেলার তারানি রিজার্ভ ফরেস্টে অভিযান চলাকালীন এই তিন জঙ্গি ধরা পড়ে৷

কিছুদিন আগেই অসমে নাশকতা হতে পারে বলে গোয়েন্দা বিভাগ সতর্কতা জারি করে৷ বলা হয়ে, গুয়াহাটি ও বিভিন্ন জনবহুল স্থানে হামলা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷ আগেও এভাবেই বারে বারে রক্তাক্ত হয়েছে অসম সহ উত্তর পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন রাজ্য৷ নিম্ন অসমে রয়েছে জেএমবি-আইএস হামলা আশঙ্কা৷ ঠিক তেমনই উজানি অসমে রয়েছে অহম বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলার সম্ভাবনা৷

তিনসুকিয়া জেলার তারানি রিজার্ভ ফরেস্ট থেকে ধরা পড়া তিন যুবক স্বীকার করেছে তারা আলফা (স্বাধীনতা) সংগঠনে যুক্ত৷ সম্প্রতি মায়ানমারের জঙ্গি শিবির থেকে পালিয়ে এসে এক আলফা জঙ্গি আত্মসমর্পণ করে৷ সে জানিয়েছিল জঙ্গি শিবিরের নিয়ম ভাঙার পর ভয়ঙ্কর শাস্তির কথা৷ যারা পালাতে গিয়ে ধরা পড়ে তাদের মেরে গভীর জঙ্গলে পুঁতে দেওয়া হয়৷