ইন্দোর: ‘লঙ্কা জয়’-এর পর ‘অজি বধ’৷ স্বপ্নের ফর্মে কোহলি অ্যান্ড কোং৷ পাঁচ ওয়ান ডে সিরিজে দু’ ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ পকেটে পুরে নিল বিরাটবাহিনী৷ রবিবাসরীয় লড়াইয়ে অস্ট্রেলিয়াকে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ৩-০ এগিয়ে গেল টিম ইন্ডিয়া৷ বিরাটদের লক্ষ্য এবার ৫-০৷

২৯৪ রান তাড়া করে রোহিত-রাহানের সেঞ্চুরি ওপেনিং পার্টনারশিপে ম্যাচের দখল নিয়েছিল ভারত৷ তাই বিরাট অল্প রানে ফিরলেও পান্ডিয়া ঝড়ে সহজ তুলে নিল ‘মেন ইন ব্লু’৷ চিপক, ইডেনের পর হোলকারেও বিরাট আধিপত্য ভারতের৷ আগের সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে ৫-০ হারিয়ে অজিদের বিরুদ্ধে খেলতে নামে ভারত৷ প্রথম তিন ম্যাচেই বিরাট জয় টিম ইন্ডিয়ার৷

আরও পড়ুন: চাঁদের পাহাড়ে ওঠা হল না শঙ্করের

রান তাড়া করতে গিয়ে রোহিত-রাহানের ১৩৯ রানের পার্টনারশিপই স্মিথদের ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয়৷ মিডল অর্ডারে কোহলি-কেদারকে দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফিরিয়ে অজিরা চাপ দিলও হার্দিক হিট পাল্টা চাপে রাখে অজিদের৷ মনীশ পান্ডেকে সঙ্গে নিয়ে পঞ্চম উইকেট ৭৮ রান যোগ করে ভারতকে জয়ের সরণিতে পৌঁছে দেন পান্ডিয়া৷ ৭২ বলে চারটি ছয় ও পাঁচটি বাউন্ডারি-সহ ৭৮ রানে ঝোড়ো ইনিংস খেলে স্মিথের হাসি কেড়ে নেন ভারতের নয়া ফিনিশার৷ এর আগে রোহিত ৭১ এবং রাহানে ৭০ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেন৷ শেষ দিকে ৩২ বলে ৩৬ রানের ইনিংস খেলেন মণিশ পাণ্ডে৷ তবে ম্যাচের সেরা হার্দিক৷

পাঁচ ম্যাচের সিরিজে আপাতত ২-০ এগিয়ে ইন্দোরে নেমেছে টিম ইন্ডিয়া৷ চিপক ও ইডেনে স্মিথদের হেলায় হারিয়েছে বিরাটবাহিনী৷ সুতরাং অজিদের সামনে এই ম্যাচ ছিল সিরিজে টিকে থাকার লড়াই৷ কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচের মতো এদিনও জয়ের স্বাদ পেল না অজিরা৷ সিরিজ হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের সামনে হোয়াইটওয়াশ আটকানোর লড়াই৷ সিরিজের শেষ দু’টি ম্যাচ বেঙ্গালুরু ও নাগপুরে৷

আরও পড়ুন: পর্নস্টারকে মারার অভিযোগ ওয়ার্নের বিরুদ্ধে

প্রথম দু’ম্যাচে জোড়া স্পিনার খেলিয়ে বাজিমাত করেছে টিম ইন্ডিয়া৷ ইডেনে আগের ম্যাচ নির্ধারিত ৫০ ওভারে মাত্র ২৫২ রান তুলেছিল টিম ইন্ডিয়া৷ এই রানই সাফল্যের সঙ্গে রক্ষা করেছেন ভারতীয় বোলাররা৷ বিশেষ করে দুই তরুণ তুর্কী চাহাল-কুলদীপ বল হাতে নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছেন অজি ব্যাটসম্যানদের৷ হ্যাটট্রিক করে স্মিথদের কোমর ভেঙে দিয়েছিলেন কুলদীপ৷ পিছিয়ে ছিলেন না চাহালও৷ তিনিও তুলে নিয়েছিলেন দু’উইকেট৷ ভুবনেশ্বর কুমারও ছ’ওভারে ৯ রান দিয়ে তুলে নিয়েছিলেন তিন উইকেট৷
এদিন হোলকার অবশ্য ভারতীয় স্পিনারদের বেদম প্রহার করেন ফিঞ্চ৷ ১২৪ রানের ইনিংস খেলেন অজি ওপেনার৷ ১২৫ বলে পাঁচটি ওভার বাউন্ডারি ও এক ডজন বাউন্ডারি মারেন তিনি৷ চোটের জন্য প্রথম দু’টি ম্যাচে খেলেননি ভিক্টোরিয়ার ডানহাতি ব্যাটসম্যান৷ এদিন মাঠে নেমে থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন ফিঞ্চ৷ বেশি নির্দয় ছিলেন আগের ম্যাচের হ্যাটট্রিককারী কুলদীপ যাদবের উপর৷ ১০ ওভারে ৭৫ রান দিয়ে দু’টি উইকেট নেন এই চায়নাম্যান৷

আরও পড়ুন: ২৬ বছর পর কপিলকে ছুঁলেন কুলদীপ

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।