প্রদ্যুত দাস, জলপাইগুড়ি: কাজ হয়নি, টাকা চুরি হয়েছে এরকম অভিযোগের পাশে কখনও কখনও উৎসাহের গল্পে নাম ওঠে পঞ্চায়েতের৷ খুব অল্প হলেও মাঝে মাঝে এদিক-ওদিক থেকে খবর আসে বাংলার কোনও অঞ্চলের পঞ্চায়েতের ভালো কাজের৷

বারাপেটিয়া নতুনবসত গ্রাম পঞ্চায়েত সেরকমই একটি ঘটনার উদাহরণ রেখেছে৷ দুস্থ ছাত্রছাত্রীদের পড়াশুনোর সুবিধার্থে একটি গ্রন্থাগার তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে এই পঞ্চায়েতটি৷

পাশাপাশি উঁচু শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রীদের আর্থিক সমস্যার সমাধানের জন্য একশো দিনের কাজের প্রকল্পের জব কার্ড দেওয়ারও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ প্রধান কৃষ্ণ দাস । সোমবার বিস্তীর্ণ এলাকার কলেজের ছাত্র ছাত্রীরা পঠনপাঠনের নানান সমস্যা সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা করেন উপ প্রধান কৃষ্ণ দাসের সঙ্গে। এরপরই তিনি জানান, “এই এলাকার ছাত্র ছাত্রীদের পঠনপাঠনের জন্য এলাকায় গ্রন্থাগার তৈরি করার গ্রহণ করা হয়েছে। এছাড়াও গরিব পরিবারের সকল ছাত্র ছাত্রীদের পঠনপাঠনের জন্য আমরা সব ধরনের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার চেষ্টা করছি।”

যদিও বিরোধীদের বক্তব্য সামনে লোকসভার ভোটের কথা মাথায় রেখেই এই সব ছেলে ভুলানো ফন্দিফিকির বার করছে স্থানীয় পঞ্চায়েত৷ জব কার্ড পাওয়া ছাত্রছাত্ররা পড়াশুনো করবে নাকি একশ দিনের কাজ? এই নিয়েও বিরোধিদের মধ্যে কয়েকজন প্রশ্ন তুলেছেন৷ এসবকে পাত্তা দিতে রাজী নয় পঞ্চায়েতে ক্ষমতায় থাকা শিবির৷ তাদের স্পশ্ট বক্তব্য এই উদ্যোগের ফলে উপকৃত হবে এলাকার প্রচুর ছাত্রছাত্রী৷