ইসলামাবাদ: কাশ্মীরে স্পেশাল স্টেটাস উঠে যাওয়ার পর থেকেই বারবার মুখ খুলছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ভারত-পাক কূটনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে একের পর এক সিদ্ধান্ত নেওয়ার পাশাপাশি বারবার ট্যুইটারে বিস্ফোরক মন্তব্যও করছেন।

কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে আরও একবার মুখ খুললেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। সরাসরি মোদী সরকারের নাম না নিয়ে মোদী সরকারকে নাৎসি জমানা ও হিটলারের সঙ্গে তুলনা করলেন ইমরান খান। রবিবার ট্যুইট করে ইমরান কাশ্মীর নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।
ট্যুইট করে ইমরান লেখেন, ‘কাশ্মীরে ৩৭০ খারিজ ও কাশ্মীরের বিভাজন নীতির পিছনে রয়েছে সঙ্ঘের আদর্শ। যা কিনা একেবারেই নাত্‍সি যুগের কথা মনে করায়।’

আরও পড়ুন: ‘আরও একটা পুলওয়ামা হতে বাধ্য’, পাক পার্লামেন্টে বিস্ফোরক ইমরান

শুধু তাই নয়, কাশ্মীর ইস্যুর তীব্র নিন্দা করে ইমরান খান ট্যুইটে লেখেন, ‘কাশ্মীরে যে দমননীতি চলছে তা একেবারে হিটলারের মনোভাব। একসময় হিটলার যেমন ইহুদি গণহত্যায় মেতে উঠেছিল, সেই দিকেই কাশ্মীরকে নিয়ে যাচ্ছে মোদী সরকার। মোদী সরকার জোর করে কাশ্মীরের মানচিত্র বদলে ফেলার চেষ্টা করছে।’

রবিবারে ট্যুইট করে ইমরান আরও বলেন, ‘ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে কার্ফু, দমননীতি এবং কাশ্মীরিদের উপর আসন্ন গণহত্যা যে নাৎসি ভাবাদর্শে অনুপ্রাণিত আরএসএসের আদর্শ অনুযায়ী করা, তা বার বার প্রমাণিত হচ্ছে।’

কয়েকদিন আগেই আরও একটি ট্যুইট করেন তিনি। লেখেন, ‘কাশ্মীরে কার্ফু উঠে যাওয়ার পর কী হয়, সেটাই দেখার জন্য অপেক্ষা করে আছে গোটা বিশ্ব। বিজেপি সরকার কী ভাবছে যে তারা সেনাবাহিনী বাড়িয়ে স্বাধীনতার লড়াই বন্ধ করে দিতে পারবে?’

আরও পড়ুন: কার্ফু উঠলেই কাশ্মীর জুড়ে শুরু হবে জেনোসাইড: বিস্ফোরক ইমরান

ইমরানের দাবি, কাশ্মীর জুড়ে গণহত্যার সাক্ষী থাকতে চলেছে বিশ্ব। এই পরিস্থিতি থামানোর জন্য আন্তর্জাতিক মহলের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে তিনি পাক পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, ‘আমার অনুমান আরও একটা পুলওয়ামার মত ঘটনা ঘটবে।’ ভারত কাশ্মীরের বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাতে যে আরও একটা পুলওয়ামার মত ঘটনা ঘটতে খুব বেশি দেরি নেই, সেটাই মনে করেন তিনি।