ইসলামাবাদ: জম্মু কাশ্মীরে হামলা চালানো নিয়ে ফের মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে পাকিস্তান৷ জি নিউজের একটি প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে এই হামলা চালাতে পাক মদতপুষ্ট বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গেও কথা চালাচ্ছে পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই৷ ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি গোপন বৈঠক হয়েছে বলে প্রতিবেদনটি জানাচ্ছে৷

কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকেই পাকিস্তানের কাশ্মীর নিয়ে মাথাব্যাথা বেড়েছে৷ ইসলামাবাদে আইএসআইয়ের সঙ্গে বৈঠকে ছিল জইশ ই মহম্মদ, লস্কর এ তৈবা, হিজবুল মুজাহিদিন ও খলিস্তানি জিন্দাবাদ ফোর্স৷ এদের প্রত্যেকেরই লক্ষ্য জম্মু কাশ্মীরে ভারতীয় সেনার ওপরে হামলা চালানো৷

এরই পাশাপাশি, জম্মু কাশ্মীরে অশান্তি ছড়ানোর লক্ষ্যে খলিস্তানি জঙ্গিদের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছে আইএসআই৷ এদিকে, সোমবার পাকিস্তান ভিত্তিক সন্ত্রাস দল লস্কর-ই-তৈবার চক্র ফাঁস করল জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ। সোপোর থেকে আট জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, সন্ত্রাসবাদে সমর্থন জানিয়ে ওই ব্যাক্তিরা কাশ্মীরের সাধারণ মানুষদের ভয় দেখাত ও বিভিন্ন জায়গায় পোস্টার প্রকাশ করার হুমকি দিত।

এর আগে, জি নিউজের একটি সূত্র জানিয়েছিল সীমান্তে অন্তত ২০০০ সেনা মোতায়েন করেছে পাকিস্তান। অধিকৃত কাশ্মীরের কাছে কোটলি ও বাঘ সেক্টরে এই বিপুল পরিমাণ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে বলে খবর মিলেছিল৷ ভারতীয় সেনা সূত্রে খবর পাওয়া যায় লাইন অফ কন্ট্রোল থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে পাক সেনা। তবে এখনও কোনও আক্রমণাত্মক পর্যায়ে নেই তারা। প্রতি মুহূর্তে ভারতীয় সেনা নজরদারি চালাচ্ছে বলে আশ্বাস মেলে৷ তবে পাক সেনা নিজে এগিয়ে আসার আগেই সীমান্ত বরাবর লস্কর ও জইশ জঙ্গিদের মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

লেফটেন্যান্ট জেনারেল কেজিএস ধানোয়া জানান পুঞ্চ এবং রাজৌরি এলাকা দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করা হচ্ছে। ভারতীয় সেনাবাহিনী দুজন পাকিস্তানি সন্ত্রাসবাদীকে ২১শে অগস্ট গ্রেফতার করে যারা লস্কর ই তইবার সঙ্গে যুক্ত। সন্ত্রাসবাদীদের তরফ থেকে স্বীকারোক্তি সহ একটা ভিডিও প্রকাশ করা হয়।