নয়াদিল্লি: জম্মু কাশ্মীর সীমান্তে ভারতীয় সেনার প্রভাব বেড়েছে৷ জঙ্গি অনুপ্রবেশেও ঘাটতি চলতি বছরে৷ ফলে খুব একটা সুবিধা করতে পারছে না পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই৷ তাই এবার জম্মু কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ বাড়াতে নেপালের সাহায্য নিতে চলেছে পাকিস্তানের আইএসআই৷

নেপালে একটি কন্ট্রোল রুম খুলতে চলেছে আইএসআই৷ সূত্রের খবর সেখান থেকে কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ করা হবে৷ মূলত সন্ত্রাস ও হামলার পরিমাণ বাড়ানোই হবে সেই কন্ট্রোল রুমের লক্ষ্য৷ তৈরি হবে কাশ্মীরের বিভিন্ন প্রান্তে নাশকতার পরিমাণ বাড়াতেই এই কন্ট্রোল রুম তৈরি করা হয়েছে বলে খবর৷

ভারতীয় গোয়েন্দারা এখন জানার চেষ্টা করছেন, ঠিক কতজন জঙ্গি নেপালের পথ ধরে জম্মু কাশ্মীরে প্রবেশ করেছে৷ গোয়েন্দারা এই তথ্য সম্বলিত রিপোর্ট পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে৷ নেপাল সীমান্তের কাছে থাকা উত্তর প্রদেশের গোরখপুর ও ফইজাবাদে ঘাঁটি গাড়তে চাইছে জঙ্গিরা৷ ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে, লস্করের অন্যতম মাথা মহম্মদ উমর মাদনির ওপর এই ঘাঁটি তৈরি করার ভার পড়েছে৷ মাদনি নাকি কলকাতা ও বিহারের দ্বারভাঙা এলাকায় রেইকিও করে গিয়েছে৷

আরও পড়ুন : পুলওয়ামায় আইইডি বিস্ফোরণে শহিদ দুই জওয়ান

ভারতের গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে, গত বেশ কয়েক মাস ধরেই নেপালে তৈরি হয়েছে আইএসআইয়ের এই গোপন ঘাঁটি, যাকে কন্ট্রোল রুম বলা হচ্ছে৷ সেখানে ইতিমধ্যেই পাক মাটিতে বেড়ে ওঠা বেশ কয়েকটি জঙ্গি সংগঠনের মাথাদের নিয়ে বৈঠক হয়েছে৷ সেখানে ছিল বিভিন্ন জঙ্গি সংঘটনের কমাণ্ডাররাও৷ জি নিউজকে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী কাশ্মীর থেকে দুই জঙ্গি মার্চ-এপ্রিল মাসে নেপালে পৌঁছেছে৷

এরা হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি সংগঠনের শীর্ষ কমাণ্ডারদের নিয়ে বৈঠকে যোগও দেয়৷ বৈঠকের নেপথ্যে ছিল আইএসআই৷ হিজবুলের অন্যান্য জঙ্গিদের সঙ্গে কাশ্মীরি ওই দুই জঙ্গির সাক্ষাত করিয়ে দেওয়া হয়৷ পরে বৈঠক শেষে বাছাই করা পাঁচ জঙ্গির দল কাশ্মীরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়৷ যারা ইতিমধ্যেই উপত্যকায় সক্রিয়৷

ভারতীয় গোয়েন্দারা জানাচ্ছেন, কাশ্মীরে ভারতীয় সেনার টহলদারি ও নজরদারি বাড়ায় স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছে না আইএসআই৷ তাই এই বিকল্প পথ বেছে নিয়েছে তারা৷ গোয়েন্দা সূত্রের খবর এবার নেপালের পথ ধরে উপত্যকায় জঙ্গি কার্যকলাপ চালাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে আইএসআই৷ জঙ্গিদের ওই বৈঠকে প্রয়োজনীয় অর্থ সাহায্যও করা হয়েছে কাশ্মীরে যাওয়া পাঁচ জঙ্গিকে৷ দেওয়া হয়েছে অস্ত্রও৷

আরও পড়ুন : পুলওয়ামা হামলার দুই জঙ্গিকে নিকেশ করল সেনাবাহিনী

এর আগেও গোয়েন্দা সংস্থার বিশেষ রিপোর্ট জানায়, ১০ থেকে ১৫ জনের সশস্ত্র জঙ্গি দল ভারতে অনুপ্রবেশের জন্য তৈরি হয়ে রয়েছে৷ কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর এরা ভারতে প্রবেশ করতে চাইছে বলে জানানো হয়েছে৷

এই জঙ্গিদের নিশানায় রয়েছে দেশের বড় বড় শহরগুলি৷ জম্মু কাশ্মীরে বড়সড় হামলা চালানোর ছক কষেছে এই জঙ্গি দল৷ অথবা সেনা ঘাঁটিতে আক্রমণ চালানোর জন্য তৈরি হয়েছে এরা বলে জানাচ্ছে রিপোর্ট৷ এদের নিশানায় থাকতে পারে অমরনাথ যাত্রাও৷