নয়াদিল্লি: বালাকোটে হামলার পর পাকিস্তানের আকাশপথ আর ব্যবহার করতে পারছে না এয়ার ইন্ডিয়া৷ এর ফলে ঘুর পথে যেতে গিয়ে সময় ও খরচ দুই বাড়ছে রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থার৷ ইতিধ্যেই এর ফলে এয়ার ইন্ডিয়ার প্রায় ৬০ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকাগামী উড়ানগুলোর ক্ষেত্রেই সমস্যা বাড়ছে। পাকিস্তানের আকাশ ব্যবহার না করতে পারায় এখন এয়ার ইন্ডিয়ার উড়ান ভারত থেকে ওয়াশিংটন, নিউ ইয়র্ক, শিকাগো প্রভৃতি স্থানে যাচ্ছে সেগুলিকে গুজরাত হয়ে আরব সাগর পেরিয়ে অনেকটা পথ ঘুরে যেতে হচ্ছে।

আরও পড়ুন: বৈঠক বিফল, ২০ দিনে এসএসসি’র ধর্না

তাছাড়া দূরপাল্লার এই বিমানগুলিকে মাঝ পথে অন্তত একবার কোথাও জ্বালানি ভরতে হয় ৷ এখন পাকিস্তানের আকাশ ব্যবহার করতে না পারায় জ্বালানি ভরতে হচ্ছে শারজা অথবা ভিয়েনায় ৷ সেখানে অবতরণ ও জ্বালানি ভরা তুলনায় ব্যয়সাপেক্ষ। এয়ার ইন্ডিয়া জানিয়েছে, এই ধরনের অবতরণের জন্য গড়ে ৫০ লক্ষ টাকা খরচ হচ্ছে।

আরও পড়ুন: যাদবপুরে কর্ম সমিতির বৈঠকে চূড়ান্ত হল ‘ডমিসাইল’

পরিস্থিতি বিচার করে প্রতি দিনের বাড়তি খরচ কমাতে ভিয়েনাতে বিমান অবতরণের সংখ্যা কমান হচ্ছে ৷ আপাতত এয়ার ইন্ডিয়ার দুটি বিমান সেখানে অবতরণ করবে বাকি বিমানগুলির জ্বালানি মুম্বইতে ভরার কথা ভাবা হয়েছে৷

এদিকে এই ভাবে ঘুরপথে যাওয়ার জন্য আমেরিকায় পৌঁছতে প্রায় চার ঘন্টা এবং ইউরোপে পৌঁছতে দুঘন্টা বেশি লাগছে, ফলে যাত্রীদের হয়রানি বাড়ছে তা বলাই বাহুল্য৷