সোয়েতা ভট্টাচার্য, কলকাতা: রাজ্যজুড়ে পাকিস্তানি প্রতারকদের প্রতারণার ফাঁদ রুখতে বড়সর সাফল্য পেল সিআইডি৷ সোমবার পার্ক সার্কাস এলাকা থেকে পাকিস্তানি প্রতারণা চক্রের এক এজেন্টকে গ্রেফতার করল সিআইডি৷ ধৃতের নাম ফিরোজ খান৷ বিহারের এই বাসিন্দা পার্ক সার্কাসে বাড়ি ভারা নিয়ে থাকছিল৷

ধৃত ফারহান এজেন্টদের একটি নেটওয়ার্ক চালাত শহরে৷ সিআইডি সূত্রে খবর এই রাজ্য সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পাকিস্তানি প্রতারকদের চক্র সক্রিয় ভাবে কাজ করছে৷ সাধারণ মানুষদের লটারির নামে প্রতারণার ফাঁদে ফেলছে এই চক্র৷ রাজ্য জুড়ে লটারির প্রতারণার বড়সড় চক্রের হদিশ পায় সিআইডি। স্বতপ্রণোদিত মামলা করে এই ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়। সিআইডি সূত্রে খবর রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষদের লটারিতে একটা বড় রাশি জেতার টোপ দেয় এই প্রতারকরা। তার পরেই প্রসেসিং ফি এর নাম করে একটি বড় রাশি হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছিল মানুষের কাছ থেকে।

এই চক্রের সদস্যদের লিঙ্ক পাকিস্তানি চক্রিদের সঙ্গে রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। সেই সূত্র ধরেই সিআইডি কর্তারা পাকিস্তানি চক্রের এজেন্টদের খোঁজ শুরু করেছে৷ এফআইআর-এও পাকিস্তানি প্রতারকদের সূত্রের বিষয় উল্লেখ করেন সিআইডি কর্তারা। জানা যাচ্ছে মানুষকে জানানো হয় যে নম্বরগুলি +৯২/০০৯২ দিয়ে ফোন বা ওয়াটস অ্যাপে মেসেজ আসলেই সাবধান হতে।

এই নম্বরের মাধ্যমে ফোন বা মেসেজ করে এই লটারি জেতার বিষয় জানানো হত। প্রসেসিং ফি জমা করতেই সেই টাকা এজেন্টদের সাহায্যে ঝটপট তুলে বিদেশে হাওলার মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয় এই পাচারকারীরা। এই ঘটনার তদন্তে নেমে সিআইডি কর্তারা জানতে পারেন প্রান বেভারেজ(ইন্ডিয়া) প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি কোম্পনির খাতায় এই টাকার অংশ ঢুকছে। এই সূত্র পাওয়ার পর এই কম্পানির বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেন তদন্তকারিরা। ঘটনায় এই কম্পানির ডিরেক্টর রাজেশ ঘোষ এবং ম্যানেজার বিধান কির্তনিয়াকে আগেই গ্রেফতার করে সিআইডি।i

মুলত ০০৯২ বা + ৯৩ দিয়ে শুরু ১২ ডিজিটের নম্বর থেকে সাবধান থাকতে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানাল সিআইডি। এই ধরনের ঘটনা ঘটলে বা এই নম্বরগুলি থেকে ফোন আসলে সিআইডি ওয়েস্ট বেঙ্গলের হেল্পলাইন নম্বর ১৪৪০৭ বা মোবাইল নম্বর ৭৯৮০১২৪৪৮৭ বা ০৩৩- ২৪৪৯০২৫৩ ফোন করে সিআইডিকে জানানোর কথাও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করলেন সিআইডি কর্তারা।