নয়াদিল্লি: ভারত পাকিস্তান সম্পর্কের উষ্ণতার রেশ পড়ল ইফতারেও৷ ইসলামাবাদে ভারতীয় হাইকমিশনের দেওয়া ইফতারে ঢুকতে বাধা দেওয়া হল আমন্ত্রিতদের৷ পাক রক্ষীরাই এই বাধা দিয়েছে বলে দাবি পাকিস্তানে নিযুক্ত ভারতের হাই কমিশনার অজয় বিসারিয়ার৷

ঘটনা শনিবারের৷ ওই দিন বিকেলে ইফতার পার্টির আয়োজন করে ইসলামাবাদে অবস্থিত ভারতীয় হাইকমিশন৷ পাক রাজধানী শহরের সেরেনা হোটেলে নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল অতিথিদের৷ ব্যবস্থা ছিল৷ অভিযোগ, পাকিস্তানের নিরাপত্তারক্ষীরা সেখানে আগত আমন্ত্রিতদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে। রক্ষীরা প্রবেশ করতে বাধা দেয় আমন্ত্রিতদের৷ সুরক্ষার নামে তাদের বিভিন্ন প্রশ্নে জেরবার হন অতিথিরা৷

শনিবার সন্ধ্যেতেই সেই থবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়ে৷ যা নজর এড়ায়নি পাকিস্তানে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার অজয় বিসারিয়ার৷ তিনি এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘‘অনেক আমন্ত্রিতদের অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার জন্য হেনস্থার শিকার হয়েছেন৷ অনেকই প্রবেশ করতে পারেনি৷ আমি তাদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী৷’’ চড়া সুরে তাঁর প্রতিক্রিয়া, ‘‘এই কাজ যারা করেছে তারা শুধু নিয়ম ভাঙেনি, সঙ্গে ভেঙেছে কূটনৈতিক নীতি ও শিষ্টাচারও৷ যা কখনই মেনে নেওয়া যায় না৷’’ পাক রক্ষীদের এই আচরণ দু’দেশর সম্পর্কে আঘাত আনতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: মাওবাদীদের সঙ্গে সংঘর্ষে শহিদ জওয়ান, খতম চার

ভারতীয় হাই কমিশন সূত্রে খবর, শনিবারের ইফতারে আমন্ত্রিত ছিলেন, পাক রাষ্ট্রপতি অরিফ আলভি,বিদেশ সচিব সহেল মেহেমুদ, সেনেট চেয়ারম্যান ও পাক জাতীয় সংসদের স্পিকার৷
এই ধরণের ঘটনা এই প্রথম নয়৷। এর আগেও ইসলামাবাদে ভারতীয় কূটনীতিকরা একাধিকবার হয়রানির শিকার হয়েছিল৷ গত বছর ডিসেম্বরে পাকিস্তান কর্তৃপক্ষ সেদেশে ভারতীয় হাই কমিশনের একাধিক আধিকারিকের গ্যাস ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছিল৷ প্রতিবাদ জানায় নয়াদিল্লি৷

ইফতারে বাধা দেওয়ার ঘটনার নিন্দা করেন জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা৷