ইসলামাবাদঃ   পাকিস্তানে এবারে গ্রীষ্মের দাবদাহ তাপমাত্রার নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করেছে।  রবিবার এবং গতকাল সোমবার পাকিস্তানের বেশির ভাগ এলাকার তাপমাত্রা ৪৬ থেকে ৫২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ওঠানামা করেছে।  আর বিশাল এই তাপমাত্রায় রীতিমত জ্বলে পুড়ে মরতে বসেছে পাকিস্তানের মানুষ।  এর থেকে রেহাই পাওয়ার উপায় কি তাও এখন বুঝতে পারছেন না পাকিস্তানের বেশির ভাগ মানুষ।

পাক আবহাওয়া দফতর বা পিএমডির প্রধান গুলাম রাসুল দেশটির একটি ইংরেজি দৈনিককে বলেছেন, অস্বাভাবিক আবহাওয়ার শিকার হয়েছে পাকিস্তান।  আর এই কারণে দেশটিতে তাপমাত্রা নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করছে।

রাজধানী ইসলামাবাদে পরপর দু’দিন রবিবার এবং সোমবারে তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রির ওপরে ছিল।  রবিবার ইসলামাবাদের তাপমাত্রা ৪৬ ডিগ্রি ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০০৫ সালে রাজধানীর তাপমাত্রা ৪৬.৬ ডিগ্রিতে পৌঁছেছিল। এবারের তাপমাত্রা ১২ বছরের সেই রেকর্ড ভাঙ্গার কাছাকাছি পর্যায়ে গিয়েছিল।

এদিকে রবিবার ডেরা ইসমাইল খানের তাপমাত্রা ৫১ ডিগ্রিতে পৌঁছেছিল এবং তাপমাত্রা ৩১ বছরের রেকর্ড ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে।  ১৯৮৬ সালের ২০ জুন সেখানকার তাপমাত্রা ৫০ ডিগ্রি স্পর্শ করেছিল।  এ ছাড়া, রবিবার পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের নুরপুরথাল ও ভাক্কারে তাপমাত্রা ৫২ ডিগ্রিতে পৌঁছেছিল।  সোমবার বেলুচিস্তানের সিবিতে তাপমাত্রা ছিল ৫০ ডিগ্রি।

পাকিস্তানের কোনও কোনও অংশে এই তাপপ্রবাহ আরও দুয়েকদিন থাকবে বলে আশংকা করা হচ্ছে।  তবে আজ মঙ্গলবার পাকিস্তানের কোথাও কোথাও বৃষ্টিপাত হতে পারে।  কিন্তু তাপমাত্রা বেশি থাকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম হবে কিন্তু প্রচণ্ড ঝড় এবং  বজ্রসহ শিলাবৃষ্টি হতে পারে বলে পাক আবহাওয়া দফতরের প্রধান জানিয়েছেন।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।