ইসলামাবাদ: সময়টা ভালো যাচ্ছে না পাকিস্তানের। নগদ সঙ্কটে পড়েছে ইমরান খান দেশ। এর থেকে উদ্ধার পেতে জি-২০ দেশগুলির কাছে লোনের আবেদন করল পাকিস্তান।

জানানো হয়েছে, আইএমএফ এবং বিশ্বব্যাংকের নিয়ম অনুসারে লোন ছাড়া অন্য কোনও লোনের আবেদন করবে না তাঁরা। পাকিস্তানের অর্থনৈতিক বিষয়ক মন্ত্রকের এক উর্ধ্বতন কর্তা দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউনকে তথ্য দেওয়ার সময় বলেছেন, এই বিষয়ে জি -২০ সদস্য দেশগুলিকে পৃথক ভাবে অনুরোধ প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৫ ই এপ্রিলের একটি বৈঠকে জি-২০র সদস্য দেশগুলি ঠিক করেছিল পাকিস্তান সহ ৭৬ টি দেশকে করোনা সংকটের কারণে আপাতত লোনের কিস্তির টাকা জমা না দেওয়ার অনুমতি দেবে। ২০২০ সালের মে থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হচ্ছে।

জি-২০ জানিয়েছিল, করোনা মহামারীর প্রভাবের কারণে এই দেশগুলিতে সংকট দেখা দিতে পারে। তবে, এতে একটি শর্ত ছিল, যে প্রতিটি দেশকে এর জন্য অনুরোধ করতে হবে। আরও একটি শর্ত রাখা হয়েছে। বলা হয়েছে, লোন পরিশোধে এই দেরির সময়ের মধ্যে দেশটি নতুন কোনও লোন ছাড়ের জন্য চুক্তি করবে না।

পাকিস্তান সরকার তাঁদের চিঠিতে টাকার অঙ্ক লেখেনি। তবে মনে করা হয়, ২০২০ সালের মে – ডিসেম্বরের মধ্যে এটি সর্বমোট ১.৮ বিলিয়ন ডলার ত্রাণ পেতে পারে। অবশ্য পাকিস্তান আইএমএফ, বিশ্বব্যাংক এবং প্যারিস ক্লাবকেও এ বিষয়ে অবহিত করেছে। জি-২০ এর সদস্য দেশগুলির কাছে পাকিস্তানের মোট ২০.৭ বিলিয়ন ডলার ঋণ রয়েছে। ২০২০ সালের মধ্যে এর থেকে ১.৮ বিলিয়ন ডলার ঋণ শোধ করতে হবে পাকিস্তানকে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।