জম্মু কাশ্মীর: অবাক করার মতো কোনও ঘটনা না। আসলে আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র এমনই। যখন সারা পৃথিবী করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে নেমেছে, তখনও নিজেদের অবস্থান থেকে একচুলও সরে আসেনি পাক বাহিনী। বর্তমানে করোনাকে দূরে ছুঁড়ে ফেলতে পুরোপুরি লকডাউন অবস্থায় রয়েছে ভারত। কিন্তু তবুও জম্মু-কাশ্মীরে যুদ্ধ বিরতি লঙ্ঘন করল পাক বাহিনী, হিন্দুস্তান টাইমসের খবরানুযায়ী এই তথ্য সামনে এসেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উত্তর কাশ্মীরের উরি সেক্টরে এই গুলিচালনার ঘটনা ঘটেছে। পাকিস্তানের গুলি চালানোর পরেই পালটা জবাব দিতে বাধ্য হয়, ভারতীয় সেনাও।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বেশ কয়েকঘন্টা ধরে লাগাতার গোলা বর্ষণ করে পাকিস্তান। পাক বাহিনীর ছোঁড়া শেলের আঘাতে একটি বাড়ির বেশ কিছু অংশ ভেঙে পড়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। সৌভাগ্যবশত, এই পাকহানায় কোনও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি।

পক বাহিনীর ছোঁড়া মর্টারগুলি হাতলাঠাঙ্গা, সিলিকোট, চূড়ুন্দা গ্রামে এসে পড়ে। এই গ্রামগুলি সবকটিই প্রায় জিরো লাইনে অবস্থিত। খুব স্বাভাবিক ভাবেই পাক সেনার এই হামলায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এলাকাবাসীদের মধ্যে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবারও সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘন করে গুলি চালায় পাকিস্তান। পুঞ্চ জেলার কেরণি, কোয়াসবা, দেগওয়ার সেক্টরে গুলি চালায় পাকিস্তান সেনা। সেদিনও পাক সেনার এই হামলার কড়া জবাব দিয়েছিল ভারতীয় বাহিনী। কিন্তু সেসব থেকে শিক্ষা না নিয়ে বৃহস্পতিবার আবারও হামলা চালাল পাকিস্তান।

করোনা আতঙ্কে সারা পৃথিবী যখন একজোট হচ্ছে, তখন পাকিস্তানের এই পদক্ষেপ ফের ইমরান খানের দেশকে কাঠগড়ায় তুলতে পারে বলে মনে করছে সচেতন মানুষ।
এর আগে, সোমবার রাত ৯ টা ৪৫ নাগাদ নাগাড়ে গোলাবর্ষণ শুরু করে পাক বাহিনীএ। একটানা গুলি চালানোর পরে মঙ্গলবার ৫ টা নাগাদ থামে পাকিস্তান। পুঞ্চের মেন্দার সেক্টর থেকেও এই গুলি ছোঁড়া হয় বলে জানা গিয়েছিল।